ট্রান্সজেন্ডার মতবাদকে প্রমোট করার প্রতিবাদে রাবিতে মানববন্ধন

ক্যাম্পাস
বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবন সংলগ্ন প্যারিস রোডে মানববন্ধন করেন শিক্ষার্থীরা  © সংগৃহীত

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) বিতর্কিত ট্রান্সজেন্ডার মতবাদকে প্রমোট করার প্রতিবাদে মানব্বন্ধন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থী। 

মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ সিনেট ভবন সংলগ্ন প্যারিস রোডে এ মানববন্ধন করেন তারা।

মানববন্ধন শিক্ষার্থীরা ব্যাক ইউনিভার্সিটি, ইনডিপেনডেন্স ইউনিভার্সিটিসহ ট্রান্সজেন্ডার-সমকামিতা সমর্থনকারী সকল প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিদেরকে হুশিয়ার করে বলেন তারা এ সমর্থন বন্ধ না করলে দেশব্যাপী কঠোর আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে তাদেরকে দমন করা হবে। এবং কোনোভাবেই বাংলাদেশে সমকামিতার এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে দেওয়া হবে না।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবী বিভাগের ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী আরিফ হাসান বলেন, আমাদের সমাজের কিছু বুদ্ধিজীবী এই টান্সজেন্ডারকে থার্ডজেন্টারে রূপ দিয়ে শাক দিয়ে মাছ ঢাকার অপচেষ্টা করছে। আমরা সবসময় থার্ডজেন্টারের অধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। কিন্তু টান্সজেন্ডার হলো পরিকল্পিত পরিবর্তন, যেটা আমাদের সমাজ ধর্ম কেউই সমর্থন করে না। কোনো ছেলে যদি এখন বলে রোকেয়া হলে সিট দেওয়া হোক তাহলে তা দেওয়া হবে? আর যদি দেওয়াও হয় তারপর কি হবে? আমরা যদি এখনই এর বিরুদ্ধে রুখে না দাঁড়াই তাহলে একসময় আমাদের ছেলেরা মনে মনে মেয়ে এবং মেয়েরা মনে মনে ছেলে বলে দাবি করবে।

এগ্রোনমি অ্যান্ড এগ্রিকালচার এক্সটেনশন ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থী জাহিদ হাসান বলেন, কওমে লুত যেমন ভাবে সমকামিতার অপরাধে পুরো জাতিসহ উল্টে ধ্বংস দেওয়া হয়েছিল। তেমনি ট্রান্সজেন্ডার ইস্যুকে রুখে দিতে না পারলে তারা আমাদের পুরো দেশকে উল্টিয়ে ছাড়বে। তাদেরকে এখনি রুখে দিতে না পারলে কওমে লুতের মতো ধ্বংস তারা ডেকে আনবে। আমরা দাঁড়িয়েছি ট্রান্সজেন্ডারকে রুখে দেওয়ার জন্য এবং এর প্রতি ঘৃণা প্রদর্শনের জন্য। তারা এই ট্রান্সজেন্ডার নামক একটা সহজ সমীকরণকে কঠিন বানিয়েছে কিন্তু এর ফলাফল শূন্য হবে।

এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের প্রায় পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ