অবাঞ্ছিত সেক্রেটারির স্বাক্ষরে হল কমিটি হওয়ায় জাবিতে বিক্ষোভ 

জাবি
  © টিবিএম ফটো

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থিতিশীল অবস্থায় অবাঞ্চিত  সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান লিটনের সাক্ষরে দুটি হলের  কমিটি  ঘোষণা করায় বিক্ষোভ মিছিল করেছেন সংগঠনের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। 


বুধবার ৩১ জানুয়ারি ( রাত সাড়ে দশটায়) বিশ্ববিদ্যালয়ের মুরাদ চত্ত্বর থেকে  মিছিল বের করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের সামনে এসে শেষ হয়। লিটনের দুই গালে, চড় মারো তালে তালে স্লোগানে বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা বঙ্গবন্ধু  হলের সামনে অবস্থান নেয়। এসময় তারা লিটনকে নানা ধরনের অশ্লীল গালাগালি করে। 

সেক্রেটারি হলের একাধিকসূত্রে জানা যায়, বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীদের প্রতিহত করতে হলের সামনে শতাধিক নেতাকর্মী জড়ো হয়। এছাড়া ঐ হলের ছাদে  আগ্নেয়অস্ত্রসহ দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্রধারী লোকবল ছিল সুত্র জানিয়েছে। 

গত ২৩ জানুয়ারি লিটনকে জমি দখল সহ নানা অনিয়মের অভিযোগে তার অনুসারীরা  অবাঞ্চিত ঘোষণার পরে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটির দশ কর্মদিবসের মাঝে রিপোর্ট পেশ করার আগেই অবাঞ্চিতত লিটন কর্তৃক দুটি হলের কমিটি ঘোষণা করায় এই বিক্ষোভ করেছেন বলে জানিয়েছেন বিক্ষুব্ধকারীরা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আকতারুজ্জামান সোহেল বলেন, আমরা নিয়ম তান্ত্রিকভাবেই হল কমিটি দিয়েছি। যতদিন কেন্দ্র থেকে কোনো ধরনের দিকনির্দেশনা না আসছে, ততদিন জাবি ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লিটনই থাকবে। যে ৬টি হল তাকে অবাঞ্চিত ঘোষণা করেছে, সে হলগুলোতে আমরা কমিটি দিব না।

সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান বলেন, আমি পরিস্থিতি দেখেছি এবং তদন্ত কমিটির প্রধানকে জানিয়েছি, তারা সেন্ট্রালি সেটার ব্যাবস্থা নেবে। তবে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যেন না ঘটে। 


মন্তব্য