পাঠককে জানতে হবে কার কবিতা পড়ছি: জবি উপাচার্য

জবি
  © সংগৃহীত

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেছেন, “পাঠককে জানতে হবে কার কবিতা পড়ছি এবং সেই কবিতা জীবনের কথা, সামাজিক বৈষম্যের কথা, নারী পুরুষের মাঝে বৈষম্যের কথা ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের কথা কতটুকু বলছে।”

বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪) বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে 'উচ্চারণে খুলি মগজের দুয়ার’ স্লোগানকে সামনে রেখে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি সংসদের (জবিআস) আয়োজনে পঞ্চম আবৃত্তি উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির  বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, সাংস্কৃতিক চর্চা আমাদের মেধা ও মননকে বিকাশ করে, বাঙালি জাতীয়তাবাদকে উদ্বুদ্ধ করে এবং বাংলাদেশের যে বহুমাত্রিকতা আছে এই বহুমাত্রিকতাকে সামনে নিয়ে আসে। আমরা ছয় ঋতুর কথা বলি, কিন্তু এখন আর ছয় ঋতু নেই। খুব দ্রুত ঋতু পরিবর্তন হয়ে যাচ্ছে। এখন দুই ঋতুর দেশ হয়ে গেছে। এখন দুই ঋতুর মধ্যে অন্য ঋতুগুলোকে নিয়ে এসে আমরা আলোকিত করার চেষ্টা করি, উজ্জীবিত হওয়ার চেষ্টা করি।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি সংসদের সভাপতি মোহাম্মদ এহসানুল হক রকীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মহিউদ্দীন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন আবৃত্তি সংসদের ব্যবস্থাপনা উপদেষ্টা কামরুল ইসলাম জুয়েল ও শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন আবৃত্তি সংসদের শিক্ষা-প্রশিক্ষণ উপদেষ্টা কে. এম. সুজাউদ্দিন।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু আন্তঃ বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি প্রতিযোগিতা ২০২৩ এবং মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আবৃত্তি প্রতিযোগিতা এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আবৃত্তি সংসদের ১৯তম আবৃত্তি ও উপস্থাপনা কর্মশালার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও আবৃত্তি সংগঠনের অংশগ্রহণে আবৃত্তি পরিবেশনা, নাচ, গান, কবি সম্মাননা ও সনদ প্রদানের মাধ্যমে দিনব্যাপী উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ