ট্রান্সজেন্ডার স্বাভাবিক প্রক্রিয়া, সবাইকে মানিয়ে নিতে হবে:  ববি শিক্ষক

ববি
  © ফাইল ছবি

ট্রান্সজেন্ডারের ধারণাকে ‘স্বাভাবিক প্রক্রিয়া’ বলে উল্লেখ করেছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (ববি) সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক দিল আফরোজ খানম।

বুধবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে বিশ্ববিদ্যালয় রেডিওর (বিইউ রেডিও) উদ্যোগে আয়োজিত এক কর্মশালায় তিনি এ মন্তব্য করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবনানন্দ দাশ কনফারেন্স হলে কর্মশালাটির আয়োজন করা হয়। এতে সহযোগিতা দিয়েছে আর্টিকেল-১৯।

কর্মশালায় যোগ দিয়ে ববি শিক্ষক বলেন, আমাদের সমাজ একটা ফুল বাগান। যেখানে নিদিষ্ট এক রঙের ফুল রাখলে তা প্রাণবন্ত দেখাবে না। ভিন্ন ভিন্ন রঙের ফুল যেমন একটি বাগানকে সৌন্দর্যমণ্ডিত করে, তেমন সমাজে বিভিন্ন লিঙ্গ, শ্রেণি, পেশা ও মতাদর্শের মানুষ থাকবে, এটাই স্বাভাবিক।

তিনি বলেন, ‘‘পুরুষ-নারী এবং তৃতীয় লিঙ্গ (হিজড়া) যেমন একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া; তেমনি ট্রান্সজেন্ডারও একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া।’’ এটা একটি প্রাকৃতিক বিষয়। এ বিষয়ে আমাদের কোনো হাত নেই। একজন নারী-পুরুষ ও তৃতীয় লিঙ্গের ব্যক্তিকে আমরা যেভাবে সম্মান করি, ট্রান্সজেন্ডারদেরকেও আমাদের তেমনি স্বাভাবিকভাবে নিতে হবে।’’

ট্রান্সজেন্ডার ধারণাটি বিশ্লেষণ করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক আফরোজ খানম বলেন, একটা সুস্থ-স্বাভাবিক মানুষের এমনটা হতেই পারে যে—সে একজন পুরুষ বা নারী হয়ে জন্মগ্রহণ করলেও আদতে তার মন-মানসিকতা ভিন্ন।

এ সময় তিনি সাম্প্রতিক সময়ে আলোচিত ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক(খণ্ডকালীন)  আসিফ মাহাতাব উৎস সম্পর্কে তিনি মন্তব্য করেন,আসিফ মাহাতাব একজন দর্শন বিভাগের শিক্ষক, তার (আসিফ মাহাতাব)  মানুষের শরীরবৃত্তীয় জ্ঞানের অভাব রয়েছে বিধায় সে এই বিষয়টাকে এতটা নেতিবাচকভাবে উপস্থাপন করেছে।

এসময় আফরোজ খানম ট্রান্সজেন্ডার ধারণার সঙ্গে সবাইকে মানিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, একজন ট্রান্সজেন্ডার হতে পারে আমাদের পরিচিত বা পরিবারের একজন। আর এটা সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়া এমন একটি প্রক্রিয়া যা—বন্ধ করা সম্ভব না। বরং এই প্রাকৃতিক প্রক্রিয়াকে আমাদের মানিয়ে নেওয়া উচিত।
কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বদরুজ্জামান ভূঁইয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মোহাম্মদ আবদুল বাতেন চৌধুরি, বঙ্গবন্ধু হলের প্রাধ্যক্ষ মো. আরিফ হোসেন।

বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সামজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন  ও সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক দিল আফরোজ খানম, লোকপ্রশাসন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মারুফা আক্তার, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সুস্মিতা রায়। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী শতাধিক শিক্ষার্থী।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ