বর্ণাঢ্য আয়োজনে ইবি লোকপ্রশাসন বিভাগের ১ম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত 

ইবি
  © টিবিএম ফটো

বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) লোকপ্রশাসন বিভাগের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংস্কৃতিক সন্ধ্যা, পিঠা উৎসব, আলোচনা সভাসহ নান্দনিক ও জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে দিনটি উদযাপন করা হয়। ৩৩ বছর পর দিনটি উদযাপনে মিলিত হয় বিভাগের ১৯৯০-৯১ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২০২২-২৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা। 

পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারী) সকাল ১০ টায় আনন্দ র‍্যালি বের করা হয়। র‍্যালিটি মীর মোশাররফ হোসেন ভবন থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে এসে  শেষ হয়। পরে সেখানে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। 

আলোচনা সভায় পুনর্মিলনী কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহবুবুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ আলমগীর হোসেন ভূঁইয়া, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাসিমা বানু, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. এ কে এম মতিনুর রহমান। আরও উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার আলী হাসান, ধর্মতত্ত্ব অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. সিদ্দিকুর রহমান আশ্রাফি। এসময় বিভাগের অর্ধ-সহস্রাধিক প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। 

আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন,  আজকের এ আয়োজনের মধ্য দিয়ে একটা নতুন অনুভূতি কাজ করছে। আয়োজনে সবাই আনন্দ- উৎসবে মেতে উঠেছে। আমি ধন্যবাদ জানাই এলামনাই এসোসিয়েশনের গঠনের উদ্যোগকে। এর মাধ্যমে তারা বিভাগে অবদান রাখবে। তারা আমাদের পতাকা বিশ্বের দরবারে  তুলে ধরবে। একই সাথে নতুন পুরাতনদের  মাঝে সম্প্রীতি দৃঢ় হবে। সবার মাঝে হৃদ্যতা, ভালোবাসা, আরো গভীর হবে। এর মাধ্যমে আজকের এই আয়োজন সার্থক হবে। 

শ্রম ও অর্থ দিয়ে সহায়তা করায় সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. ফকরুল ইসলাম বলেন, বিভাগের শিক্ষার্থীরা দেশ গঠনে ভূমিকা রাখছে। সামগ্রিক চিন্তাকে সমৃদ্ধ করতে নতুন পুরাতনের মেলবন্ধনে পারস্পরিক সম্পর্ক ভূমিকা রাখছে। এছাড়া তিনি মেধা দিয়ে দেশ গঠনে ভূমিকা রাখার,  বিভাগের সার্থকতা এবং দেশমাতৃকার সেবায়  এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ