জাবিতে ‘‘ক্রিটিক্যাল অ্যাফেক্টিভ পেডাগোজি’’ নিয়ে গবেষণা সম্মেলন শুরু

জাবি
  © টিবিএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ইংরেজি বিভাগের আয়োজনে দু’দিনব্যাপী ‘ক্রিটিক্যাল-এ্যাফেক্টিভ পেডাগজি ফর বাংলাদেশ: টিচিং ল্যাঙ্গুয়েজ, লিটারেচার, কালচারাল স্টাডিজ, এ্যান্ড কমিউনিকেশন ইন ইংলিশ স্টাডিজ’ শীর্ষক জাতীয় গবেষণা সম্মেলন শুরু হয়েছে। দেশের ইতিহাসে পোডাগোজি এ নিয়ে প্রথমবারের গবেষণা সম্মেলন হতে চলেছে এটি।  

২৪ মে (শুক্রবার) সকাল নয়টায় বিশ্ববিদ্যালয়ে সিনেট হলে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সম্মেলন শুরু হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ নূরুল আলম।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য বলেন, ক্রিটিক্যাল অ্যাফেক্টিভ পেডাগোজি নিয়ে প্রথমবারের মত এ আয়োজন নিয়ে আমরা গর্বিত। এ সম্মেলন মূলত আমাদের এ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা, গবেষণা ও উদ্ভাবনকে এগিয়ে নেওয়ার যে প্রত্যয় তা পুর্নব্যক্ত করেন। আমি বিশ্বাস করি এ সম্মেলনে সারা দেশ থেকে স্কলার, শিক্ষক এবং পেশাজীবীরা একটি অর্থবহ সংলাপের জন্য একত্রিত হবেন। যেখানে একে অপরে ইংরেজি অধ্যয়নের ক্রিটিক্যাল এ্যাফেক্টিভ পেডাগজি’র আলোকে তাদের চিন্তা-ভাবনা বিনিময় করবেন।

এসময় উপাচার্য পরবর্তী প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের তথ্য সমৃদ্ধ, সহানুভূতিশীল এবং সামাজিকভাবে দায়িত্বশীল বিশ্ব নাগরিক গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতির কথা স্মরণ করিয়ে দেন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কলা ও মানবিকী অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মো. মোজাম্মেল হক। অধ্যাপক মোজাম্মেল হক বলেন, দ্রুত পরিবর্তনশীল এ বিশ্বে ইংরেজি এখন শুধু একটি ভাষা নয় বরং এটি এখন একইসাথে সুযোগের প্রবেশদ্বার, ক্ষমতায়নের হাতিয়ার এবং আন্তঃসাংস্কৃতিক অধ্যয়নের একটি মাধ্যম। ভাষাতাত্তিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের প্রাচুর্যপূর্ণ দেশের একজন স্কলার বা শিক্ষাবিদ হিসেবে আমাদের কাজ শিক্ষার্থীদেরকে শুধু ভাষাগত দক্ষতা অর্জন করানোর মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। এ নিয়ে তাদের ক্রিটিক্যাল চিন্তা করা শেখানোও আমাদের কাজ। এছাড়াও তিনি কগনিটিভ এবং অ্যাফেক্টিভ পেডাগোজির গুরুত্ব নিয়েও কথা বলেন।

এ সম্মেলন ভবিষ্যতে ক্রিটিক্যাল অ্যাফেক্টিভ পেডাগোজির প্রেক্ষিত ও সম্ভাবনাগুলো দেখাতে সক্ষম হবে বলে আশা প্রকাশ করেন সম্মেলনের আহ্বায়ক অধ্যাপক মাসরুর শাহিদ হোসেন ।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ইংরেজি বিভাগের সভাপতি সাবেরা সুলতানা, সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহম্মদ রায়হান শরীফ প্রমুখ।

সম্মেলনে একাধিক প্লেনারি সেশনে ৯৮টি গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করা হবে এবং অংশগ্রহণ করছেন ১২০ জন গবেষক। এছাড়া ৪ জন কিনোট স্পিকার, ৪ জন প্লেনারি স্পিকার তাদের বক্তব্য তুলে ধরবেন। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক, স্নাতকোত্তর, এমফিল এবং পিএইচডির শিক্ষার্থীরাও তাদের গবেষণা সারসংক্ষেপ তুলে ধরবেন এ সম্মেলনে।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ