গলায় ফাঁস দিয়ে রুয়েট শিক্ষার্থী সৌভিকের আত্মহত্যা

রাবি
সৌভিক মল্লিক (২১)  © সংগৃহীত

রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) এক শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার (২৫ মে) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে ঘরের দরজা ভেঙে তার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন রুয়েট ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. কামরুজ্জামান রিপন।

ওই শিক্ষার্থীর নাম সৌভিক মল্লিক (২১)। তিনি রুয়েটের কম্পিউটার সায়েন্স ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের দ্বিতীয়বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি মাগুরা জেলার শালিকা থানার রামকান্তপুর গ্রামের সমির কুমার মল্লিকের ছেলে। সৌভিক রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানার সাধুর মোড় এলাকার একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন।

রুয়েট ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. কামরুজ্জামান রিপন বলেন, ঘরের দরজা ভেতর থেকেই লাগানো ছিল। অন্য ছাত্ররা ডাকাডাকি করেও সাড়া না পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে সৌভিককে উদ্ধার করে দ্রুত রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও বলেন, সৌভিক আত্মহত্যা করেছে বলেই প্রাথমিকভাবে আমরা ধারণা করছি। আর কেন এমন ঘটনা সে ঘটিয়েছে সেটি নিয়ে তার রুমমেটের সঙ্গে কথা বলেছি। রুমমেট আমাকে জানিয়েছে যে, কিছুদিন ধরে সৌভিক ডিপ্রেশনের মধ্যে ছিলেন। কিন্তু কী নিয়ে ডিপ্রেশন তা এখনো জানতে পারিনি।

এই বিষয়ে রাজশাহীর বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবীর বলেন, সৌভিকের মরদেহ বর্তমানে রামেক হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে। এছাড়া তার অভিভাবকদেরকেও খবর দেওয়া হয়েছে। তারা মাগুরা থেকে রাজশাহী পৌঁছার পর এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


মন্তব্য