ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে জবি অধ্যাপকের মৃত্যু 

জবি
জবি অধ্যাপক ড. শিল্পী খানম  © সংগৃহীত

বোনম্যারো ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক অধ্যাপকের মৃত্যু হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের ওই অধ্যাপকের নাম ড. শিল্পী খানম। দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে মরণঘাতী ক্যান্সারের সাথে লড়াই করে শ্যামলী বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ রবিবার বিকেল ৪:৩০ মিনিটে মৃত্যুবরণ করেন। 

মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওনার সহকর্মী অধ্যাপক ড. হোসনে আরা বেগম (জলি)। তিনি বলেন, 'আমি মাত্রই শুনেছি আপার খবর টা শুনে আমার হাত পা কেঁপে উঠেছে। আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ওনার চিকিৎসার জন্য টাকাও দিয়েছেন। সেটাও পৌঁছাতে পারলাম না। খুব খারাপ লাগছে। আমি আর কথা বলতে পারছি না'

বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস বলেন, 'অধ্যাপক ডক্টর শিল্পী খানমের ক্যান্সারে মৃত্যু আমাদের জানিয়ে গেল শিক্ষক হিসেবে কতটা অসহায় আমরা। ব্যয়বহুল চিকিৎসা নিয়ে তার পরিবারকে বিচলিত হতে দেখা গেছে। শিক্ষকরা ব্যক্তিগত পর্যায় থেকে অর্থ সহায়তা করেছেন কিন্তু তারও একটা সীমাবদ্ধতা ছিল। আমাদের সহকর্মীর মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।'

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, উনি আমাদের সহকর্মী ছিলেন। ওনার মরদেহ দেশের বাড়িতে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মাধ্যমে ওনার চিকিৎসার খরচ, দেনাপাওনার বিষয়টি দেখা হবে৷ 

বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী শিবলী নোমান বলেন, ম্যাম অনেক বন্ধুসুলভ ছিলেন, সবসময়ই শিক্ষার্থীদের আগলে রাখতেন। নিজের সন্তানের মতো করেই আমাদের আদর-স্নেহ করতেন। আমরা বিভাগের সাবেক বর্তমান শিক্ষার্থীরা মিলে ম্যামের চিকিৎসার জন্য কিছু টাকাও জোগার করেছিলাম। সেই টাকা নিয়ে হাসপাতালে এসেই মৃত্যুর খবর শুনলাম। উনার অকাল মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।

জানা যায়, প্রায় আড়াই বছর আগে বোনম্যারো ক্যান্সার ধরা পড়ে অধ্যাপক শিল্পী খানমের। এরপর দেশে কিছুদিন চিকিৎসার পর তাঁকে নেয়া হয় ভারতে। ভারতের টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে প্রায় দেড় মাস চিকিৎসার পর দেশে ফিরে আসেন তিনি। তবে দিনে দিনে শরীরের অবস্থা আরো খারাপ হতে থাকে। ক্যান্সার পুরো রক্তে ছড়িয়ে পড়ে। এরপর দীর্ঘদিন বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন তিনি৷


মন্তব্য