রাবির রহমতুন্নেসা হলে বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত

রাবি
  © টিবিএম

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) রহমতুন্নেসা হলে বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হয়েছে। রোববার (৩ জুন) রাত ৮টায় হলের টিভি রুমে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাবি শাখার আয়োজনে এ দিবস পালিত হয়। 'করবো ভূমি পুনরুদ্ধার, রুখবো মরুময়তা অর্জন করতে হবে মোদের খরা সহনশীলতা' এই স্লোগানকে সামনে রেখে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের সাথে উন্মুক্ত আলোচনা ও প্রশ্ন উত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ করেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা।

এ সময় অনুষ্ঠানের প্রধান বক্তা বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাবি শাখার সহ-সভাপতি অধ্যাপক সাবরিনা নাজ বলেন, পরিবেশ ভালো থাকলে কোনো না কোনো ভাবে আমরা আর একটু হলেও ভালো থাকতাম। কিন্তু আমরা ভালো নেই কারণ এ বছরের গরমটা আমাদের কাছে অসহনীয় বলে মনে হয়েছে। পরিবেশ অত্যন্ত শুষ্ক, বাতাস আদ্রতা খুবই কম। তাই আমাদের যেমন বেশি পরিমাণে পানি পান করতে হবে তেমনি বাতাসের আদ্রতাও আমাদের ধরে রাখতে হবে। পাশাপাশি আমাদেরকে অবশ্যই গাছ কাটা বন্ধ করতে হবে। বেশি পরিমাণে গাছ লাগাতে হবে। আমরা প্রত্যেকে অন্তত একটি করে হলেও গাছ লাগানোর চেষ্টা করব। 

এছাড়া বর্তমানে প্লাস্টিক এবং পলিথিন আমাদের জীবনের সাথে ওতোপ্রোতোভাবে জড়িয়ে গেছে। যেটা পরিবেশের জন্য মারাত্মক হুমকিস্বরূপ। আমরা প্রতিদিন সকালে একটি ব্যাগ নিয়ে বের হলে পলিথিনের ব্যবহার কমাতে পারি। পরিবেশের সমস্যা শুধু রাষ্ট্রীয় বা বৈশ্বিক নয় এটা সবার ব্যক্তিগতও। অপরদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থীদের দায়িত্ব এ বিষয়ে লোকজনকে সচেতন করা। তাই পরিবেশ নিয়ে ভাবুন এবং নিয়মিত গাছ লাগান পরিবেশকে রক্ষা করুন।

পরিষদের সহ-সভাপতি মাহবুবা কানিজ কেয়া বলেন, আমাদের বেঁচে থাকা, আমাদের অস্তিত্ব পরিবেশের কারণে ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। আমরা যদি  নিজেদের স্বভাবের কারণে আমাদের পরিবেশকে ধ্বংস করি সেটা আমাদেরই ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য ক্ষতিকর। পরিবেশ দূষণ সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত করে একজন নারীর জীবনকে। আমাদের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য পরিবেশকে রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের সবার। আমর প্রত্যেককে ব্যাক্তিগতভাবে সচেতন থেকে আমাদের পরিবেশকে রক্ষা করতে হবে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক হাসনা হেনা বলেন, এ বিশ্ব সবার তাই বিশ্বকে রক্ষা করার দায়িত্বও আমাদের সবার। আমরা সকল প্রকার প্লাস্টিক পণ্য যেখানে সেখানে না ফেলে একটি নির্দিষ্ট স্থানে ফেলব যাতে প্লাস্টিককে আমরা রিসাইকেল করতে পারি। এজন্য রহমতুন্নেসা হল বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। প্রতি ফ্লোরে ফ্লোরে প্লাস্টিক জাতীয়দ্রব্য সংরক্ষণের ব্যবস্থা করে তা রিসাইকেল করার ব্যবস্থা করা হবে। এ উদ্যােগ রহমতুন্নেসা হল সর্বপ্রথম হাতে নিয়েছে। পরবর্তীতে অনেকেই এ বিষয়ে সর্তক হবে, কাজ করবে বলে আমরা আশা করছি। আমরা কিছুদিনের মধ্যে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিও হাতে নেব এবং পরিবেশ দূষণ রোধ করে পৃথিবীকে রক্ষা করতে আমরা সকলে এগিয়ে আসব।

বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ রাবি শাখার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোবাররা সিদ্দিকার সঞ্চালনায় এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন, পরিষদের শাখা সহ-সভাপতি অধ্যাপক মাহবুবা কানিজ কেয়া, কোষাধ্যক্ষ শুভ্রা রাণী চন্দ, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক ফরিদা ইয়াসমিনসহ অসংখ্য শিক্ষার্থীরা।


মন্তব্য