পূর্বাচলে বিশ্বমানের হাসপাতাল গড়বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় 

ঢাবি
  © টিবিএম ফটো

চিকিৎসাবিজ্ঞান গবেষণা এবং স্বাস্থ্যসেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে রাজধানীর পূর্বাচলে বিশ্বমানের মেডিকেল ফ্যাকাল্টি কাম হসপিটাল গড়তে চায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বুধবার (২৬ জুন) বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটের বার্ষিক অধিবেশনে এ কথা জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল।

উপাচার্য বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব কোনো চিকিৎসা অনুষদ নেই। বেইজিং, টোকিও, সিঙ্গাপুর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি-সহ পৃথিবীর প্রায় সকল বড়ো বিশ্ববিদ্যালয়ে মেডিকেল ফ্যাকাল্টি কাম হসপিটাল রয়েছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়গুলো স্ব স্ব দেশে চিকিৎসাবিজ্ঞান গবেষণা এবং স্বাস্থ্যসেবায় গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। জমি পাওয়া গেলে পূর্বাচল ক্যাম্পাসে একটি বিশ্বমানের মেডিকেল ফ্যাকাল্টি কাম হসপিটাল গড়ে তোলা হবে। 

অধ্যাপক মাকসুদ কামাল বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মাইক্রোবায়োলজি, বায়োকেমিস্ট্রি এন্ড মলিকুলার বায়োলজি, ফার্মেসী, পুষ্টি ও খাদ্যবিজ্ঞান, বায়োমেডিক্যাল ফিজিক্স-সহ সংশ্লিষ্ট কয়েকটি বিভাগ ও ইনস্টিটিউট সীমিত সামর্থ্যের মধ্যেও মেডিকেল শিক্ষায় অবদান রাখছে। মেডিকেল ফ্যাকাল্টি গড়ে তোলা সম্ভব হলে সমন্বিত প্রচেষ্টায় তা বাংলাদেশের চিকিৎসাবিজ্ঞানে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

আধুনিক গবেষণা-নির্ভর একটি ক্যাম্পাস নির্মাণের জন্য কোলাহল ও দূষণমুক্ত পরিবেশ প্রয়োজন। পৃথিবীর সকল মানসম্মত বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রয়োজন মোতাবেক একাধিক বিশেষায়িত ক্যাম্পাস রয়েছে। এই লক্ষ্যে ২০১৭ সালে পূর্বাচলে একটি প্রাতিষ্ঠানিক প্লট পাওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ রাজউক বরাবর আবেদন করে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে রাজউক পূর্বাচলে প্রায় ৫২ একর জমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে প্রাথমিক বরাদ্দ দেয়। উক্ত জমি প্রতীকী মূল্যে বা 'বুক টু বুক' ট্রান্সফারের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ২০২২ সালে উদ্যোগ গ্রহণ করে, যা হস্তান্তরের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। 

পূর্বাচলে  'Research and Innovation Campus' অর্থাৎ গবেষণা ও উদ্ভাবন ক্যাম্পাস গড়ে তোলার পাশাপাশি ইন্ডাস্ট্রি-ইউনিভার্সিটি সম্পর্ক জোরদার ও প্রাতিষ্ঠানিকীকরণের লক্ষ্যে সেখানে গড়ে তোলা হবে স্টার্ট ‘আপ স্টুডিও।’


মন্তব্য