কুবিতেও কাল থেকে চলবে শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি 

কুবি
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় (কুবি)  © ফাইল ছবি

অর্থ মন্ত্রণালয়ের জারি করা সর্বজনীন পেনশনের ‘প্রত্যয়’ স্কিমের প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহারের দাবিতে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক চারদিন অর্ধদিবস ও একদিন পূর্ন দিবস কর্মবিরতি পালন শেষে দাবি না মানায় এবার  সোমবার (১ জুলাই) থেকে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ কর্মবিরতির ঘোষণা দিয়েছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। 

একই অবস্থা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যেও। সর্বজনীন পেনশনের ' প্রত্যয়'  স্কিমের প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার ও ইউজিসি কর্মকর্তাদের নিয়োগ ও পদোন্নতি/পদোন্নয়নের ক্ষেত্রে কোন আলোচনা না করেই  সুপারিশকৃত অভিন্ন নীতিমালা প্রত্যাহারের দাবিতে বাংলাদেশ আন্ত: বিশ্ববিদ্যালয়  অফিসার্স ফেডারেশনের নির্দেশে তিন দিন কর্মবিরতি পালন করবে কর্মকর্তারা। এছাড়া সর্বজনীন পেনশন স্কিম 'প্রত্যয়' বাতিলের দাবিতে বাংলাদেশ আন্ত: বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা মোতাবেক বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারীরাও তিনদিন (১ জুলাই থেকে ৩ জুলাই) অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করবে।

রবিবার (৩০ জুন) বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে সোমবার (১ জুলাই) থেকে  কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা সব ধরনের ক্লাস কার্যক্রম বন্ধ রাখবে বলে নিশ্চিত হওয়া যায়। এ ব্যাপারে শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মো. আবু তাহের বলেন, ‘পেনশন স্কিম বাতিলের দাবিতে শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী আগামীকাল থেকে লাগাতার পূর্ণাঙ্গ কর্মবিরতি চলবে। সভা সেমিনার, ক্লাস, পরীক্ষা সকল কার্যক্রম থেকে আমরা বিরত থাকবো। তাছাড়াও দুপুর ১২ টা থেকে ১টা পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচি পালন করবো।’ 

একই তারিখে স্বাক্ষরিত বাংলাদেশ আন্ত: বিশ্ববিদ্যালয়  অফিসার্স ফেডারেশন ও বাংলাদেশ আন্ত: বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী ফেডারেশনের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে কর্মবিরতির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়। 

এ ব্যাপারে  বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. ছাদেক হোসেন মজুমদার বলেন,  ' আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স ফেডারেশনের নির্দেশনা মোতাবেক আমরা কার্যক্রম চালিয়ে যাব। আমরা আগামীকাল (১ জুলাই) থেকে ৪ জুলাই পর্যন্ত অর্ধদিবস কর্মবিরতি পালন করবো এবং এর মাঝে দাবি আদায় না হয় তাহলে ৭ তারিখ থেকে সকল কার্যক্রম থেকে আমরা বিরত থাকবো ও পূর্ণদিবস কর্মবিরতিতে যাবো।’ 

শিক্ষকরা ক্লাস না নিলেও শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনায় এক জুলাই থেকে পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত শিক্ষার্থী পরিবহনে নিয়োজিত নীল বাসসমূহ শুধু বিকাল,সন্ধ্যা এবং রাতে পূর্বের নির্ধারিত শিডিউল অনুযায়ী চলাচল করবে বলে নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহণ পুলের সেকশন অফিসার মোঃ জাহিদুল আলম।

উল্লেখ্য, বৈষম্যমূলক পেনশন স্কিম প্রত্যাহারের দাবিতে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী গত ৪ জুন এবং ২৫, ২৬ ও ২৭ জুন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ অর্ধদিবস এবং আজ ৩০ জুন পূর্ণদিবস কর্মসূচি পালন করে।


মন্তব্য