কোটা বহালের প্রতিবাদে মহাসড়কে অবস্থান জাবি শিক্ষার্থীদের

জাবি
  © টিবিএম

সরকারি চাকুরীতে কোটা ব্যবস্থার যৌক্তিক সংস্কারসহ ৪ দাবিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। বুধবার (৩ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগারের সামনে থেকে মিছিল নিয়ে ঢাকা-মহাসড়কে অবস্থান নেয় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীদের বাধার মুখে মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে ঢাকাগামী অংশে হেমায়েতপুর পর্যন্ত এবং আরিচাগামী অংশে পল্লীবিদ্যুৎ এলাকা পর্যন্ত দীর্ঘ যানযটের সৃষ্টি হয়। এসময় 'সারাবাংলায় খবর দে, কোটা প্রথার কবর দে', 'মুক্তিযুদ্ধের বাংলায়, কোটা প্রথার ঠাঁই নাই' সহ বিভিন্ন শ্লোগান দেন তারা।

শিক্ষার্থীদের অন্য দাবিগুলো হলো, ২০১৮ এর পরিপত্র বহাল সাপেক্ষে কমিশন গঠন করে দ্রত সময়ের মধ্যে সরকারি চাকরিতে (সকল গ্রেডে) কোটা বাদ দেওয়া, সংবিধান অনুযায়ী কেবল অনগ্রসর ও সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীরজন্য কোটা সংরক্ষণ, সরকারি চাকরির নিয়োগ পরীক্ষায় কোটা সুবিধা একাধিকবার ব্যবহারের সুযোগএবং কোটায় যোগ্য প্রার্থী না পাওয়া গেলে শুন্য পদগুলোতে মেধা অনুযায়ী নিয়োগ প্রদান, দুর্নীতিমুক্ত, নিরপেক্ষ ও মেধাভিত্তিক আমলাতন্ত্র নিশ্চিত করতে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

এসময় আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী তৌহিদ মোহাম্মদ সিয়ামের সঞ্চালনায় ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী জাহিদুজ্জামান বাপ্পী বলেন, ’১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধ হয়েছিল বৈষম্য থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য অথচ আজকে সাধারণ মানুষকে উপেক্ষা করে কোটা ব্যবস্থা পুনর্বহাল করা হয়েছে। স্বাধীন বাংলাদেশে আমরা কোন ধরনের বৈষম্য মেনে নিবো না এবং দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলমান থাকবে।’

পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের ৪৭তম ব্যাচের শিক্ষার্থী মাহফুজুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা স্বাধীনতার ৫০ বছর পরও এসে দেখছি, সরকারি চাকরিতে ৫৬ শতাংশ কোটা বিদ্যমান। এ বৈষম্যের জন্য কি আমরা ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছিলাম? আমরা আবারও যুদ্ধে নেমেছি এই বৈষম্য দূর করার জন্য।   যদি আগামীকাল আমাদের দাবি মেনে নেয়া না হয়, তাহলে সারা দেশ অচল করে দেওয়া হবে।’

ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আশুলিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ এফ এম সায়েদ বলেন, জন সাধারণের দূর্ভোগের কথা ভেবে আমরা ইতোমধ্যে বিকল্প রাস্তা ব্যবহারের জন্য ট্রাফিক পুলিশ মোতায়েন করেছি। পাশাপাশি আমরা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে শিক্ষার্থীদের অবরোধ দ্রুত তুলে নেওয়ার ব্যবস্থা করেছি। শিক্ষার্থীরা আগামীকাল সড়ক অবরোধ করলে উর্ধতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে কোটা সংক্রান্ত হাইকোর্টের রায়কে কেন্দ্র করে 'মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, সন্তান প্রজন্মকে অবমাননা করার প্রতিবাদে' 'মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও প্রজন্ম- জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়' এর ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার সংলগ্ন সড়কে এদিন বিকাল  কর্মসূচি পালন করেন তারা।


মন্তব্য