হিলিতে কমেছে আদা-রসুন ও কাঁচামরিচের দাম, বেড়েছে পেঁয়াজের

সারাদেশ
  © ফাইল ফটো

দিনাজপুরের হিলিতে এক সপ্তাহের ব্যবধানে কমেছে আদা, রসুন ও কাঁচামরিচের দাম। দেশি আদা কেজি প্রতি ৪০ টাকা কমে ২০০ টাকায়, দেশি রসুন কেজি প্রতি ১০০ টাকা কমে ১৫০ টাকায়, দেশি কাঁচামরিচ কেজি প্রতি ১৫ টাকা কমে ৩৫ টাকায় এবং দেশি আলু কেজি প্রতি প্রকারভেদে ৫ টাকা কমে ২৪ থেকে ২৬ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

মোকামগুলোতে সরবরাহ বৃদ্ধির কারণে কমেছে দাম বলছেন খুচরা ব্যবসায়ীরা। দাম কমাতে সাধারণ ক্রেতাদের মাঝে কিছুটা স্বস্তি ফিরলেও পেঁয়াজের দাম নিয়ে বিরুপ মন্তব্য সাধারণ ক্রেতাদের মাঝে। একদিনের ব্যবধানে দেশি পেঁয়াজ কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে দেশি পেঁয়াজ ৯৫ থেকে ১১০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে হিলির বাজার ঘুরে এ তথ্য পাওয়া যায়।

হিলি বাজারে কাঁচাবাজার করতে আসা আতিকুর রহমান বলেন, দেশের বাজারে তো সব জিনিস পত্রে দামই বদ্ধি পেয়েছে। এরই মধ্যে দেশি কিছু কিছু নিত্যপণ্যের দাম কমেছে। তবে দেশি পেঁয়াজের দাম কোন ভাবেই কমছে না। প্রতিদিনই এই নিত্যপণ্যটির দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। একদিনের ব্যবধানে কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। সামনে রমজান মাস, পেঁয়াজের চাহিদা বেশি থাকে আর এই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি করে দিয়েছে। ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করতে পারলে দাম অনেকটাই কমে যাবে, সেই জন্য ক্রেতারা ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির জোর দাবি জানান।

হিলি বাজারের সবজি বিক্রেতা ইয়াসিন আরাফাত বলেস, এক সপ্তাহের ব্যবধানে আলু, আদা, রসুন এবং কাঁচামরিচের দাম কমেছে। তবে পেঁয়াজের দাম কমেনি। পেঁয়াজের দাম কেজি প্রতি ১০ থেকে ১৫ টাকা বৃদ্ধি পেয়েছে। মোকামে দাম বেশি হওয়ার কারণে হিলির খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে ভারত থেকে যদি পেঁয়াজ আমদানি হতো তাহলে দেশি পেঁয়াজের দাম অনেকটাই কমে যাবে।

তথ্য: আরটিভি


মন্তব্য