প্রেমে পড়লেও ভুলে যে ৫ আচরণ করবেন না

প্রেম
  © ফাইল ছবি

প্রেম সৃষ্টির শুরু থেকেই। প্রকৃতিগতভাবেই মূলত বিপরীত লিঙ্গের প্রতি আকর্ষণ তৈরি হয়। তাই কারো প্রেমে পড়া খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার।  কিন্তু প্রেমে পড়া আর প্রেম করা এই দুইয়ের মধ্যে রয়েছে বিস্তর পার্থক্য।

প্রথম ধাপে অনেকে থাকলেও দ্বিতীয় ধাপ অর্থাৎ পছন্দের মানুষটির সঙ্গে প্রেম করা কিন্তু একটু কষ্টসাধ্য। অনেকক্ষেত্রেই প্রেমে পড়লেও পছন্দের মানুষের সাথে প্রেম করার সুযোগ হয় না।

অনেকে আবার প্রেমে পড়লে তাকে মুগ্ধ করতে গিয়ে তার সঙ্গে কথা বলা কিংবা তার সামনে চলাফেরার ক্ষেত্রে অনেকে ভুল করে থাকেন। তাই প্রেমে পড়লে কিছু কাজ থেকে অবশ্যই সংযত থাকা উচিত। আর আজকের প্রতিবেদনে থাকছে এসকল বিষয়েই আলোচনা।

নিজের ব্যাক্তিত্ব বজায় রাখুন: প্রেমে পড়লে বলা হয় , মানুষের হুশজ্ঞান লোপ পায়। চিত্রশিল্পী ভ্যানগগ প্রেমিকার মন পেতে নিজের কান কেটে ফেলেছিলেন। এতে প্রেমিকা ভেবেছিল, ভ্যানগগ মানুষ হিসেবে ভয়ংকর। কারণ নিজেরই কান কেটে ফেলে যে সেতো অন্যের প্রতিও অবিচার করতে পারে। কিন্তু ভ্যানগগ প্রকৃতপক্ষে খুব কোমল স্বভাবে ছিলেন। কিন্তু আচরণের জন্য প্রেমিকাকে পাননি। এই যে নিজের ব্যক্তিত্বের বাইরে গিয়ে আচরণ সেটা বাদ দিতে হবে। আপনি যা তাই প্রকাশ করুন।  

ওভার স্মার্টনেস: প্রেমে পড়লে কেউ কেউ নিজেকে স্বাভাবিক থেকে কয়েক ধাপ এগিয়ে নিয়ে থাকেন। অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসের কারণে অধিকাংশ সময়ই কাঙ্ক্ষিত প্রেমটি আর হয়ে ওঠে না। নিজেকে বেশি স্মার্ট প্রমাণ করতে গিয়ে কেউ কেউ পছন্দের মানুষটির বিরক্তের কারণ হয়ে দাঁড়ান। আবার অনেক ক্ষেত্রে এমন কিছু আচরণ করা হয় যা একদমই বিপরীত মানুষটির পছন্দ নয়।

অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসী: পছন্দের মানুষের মন পাওয়ার জন্য নিজেকে অতিরিক্ত বিশ্বাসী ভাবা যাবে না। অধিকাংশ মানুষই বুঝদার ব্যক্তিদের পছন্দ করলেও সবজান্তা স্বভাব-বৈশিষ্ট্যের কাউকে পছন্দ করেন না। কখনো কখনো নিজের আচরণগত কারণে পছন্দের মানুষের কাছে হাসির পাত্র হয়ে উঠতে পারেন।

আর্থিক শো-অফ: অনেক টাকা-পয়সা, গাড়ি-বাড়ি থাকলেই পছন্দের মানুষকে দামি সব উপহার দিয়ে তার মন পাওয়ার চেষ্টা করবেন না। কেননা, ভালোবাসা কখনো অর্থ-সম্পদ দেখে হয় না। আর যে সকল মানুষ অর্থ-সম্পদ দেখে সম্পর্ক গড়ে তোলে সেটা মূলত কোনো ভালোবাসার সম্পর্ক নয়।

অহংকার: মেধা বা বিশেষ কোনো গুণের কারণে আপনি নিজেকে সেরা মনে করতে পারেন। কিন্তু গুণের কারণে অহঙ্কারও করবেন না। এমনটা করলেও পছন্দের মানুষের মন পাবেন না। একটি ভালোবাসার সম্পর্ক হচ্ছে আমৃত্যু একসঙ্গে কাটিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি। কূরণ অহঙ্কারবোধ থাকলে বিপরীত মানুষকে সবসময় ছোট মনে হওয়া স্বাভাবিক। আর এই বিষয়গুলো প্রতিটি মানুষই সম্পর্ক গড়ে তোলার আগে পর্যবেক্ষণ করে থাকেন।
কেয়ারলেস ভাব দেখাবেন না: ধরেন কোথাও খেতে বসেছেন একসঙ্গে আগে ওর দিকে খাবার এগিয়ে দেন। যানবাহনে উঠবেন আগে তাকে উঠতে হেল্প করেন। মানে সে যাতে বুঝতে পারে আপনি কেয়ারিং।  

অনেকেই মনে করেন, যে কেয়ারলেসভাব নিলে মেয়েরা পছন্দ করে । এই তথ্য একেবারেই সঠিক না।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ