নরসিংদীতে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার কলেজ ছাত্রীর হাসপালে মৃত্যু

নরসিংদী
  © সংগৃহীত

নরসিংদীতে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার  সাদিয়া আক্তার(১৯) নামে এক কলেজ ছাত্রীর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (৩ এপ্রিল)  বিকেল ৫ টার দিকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা হাসপাতালের আর আবাসিক মেডিকেল অফিসার সামিয়া পাঠান।

নিহত সাদিয়া আক্তার নরসিংদী শহরের শাপলাচত্বর এলাকার জাকির হোসেন এর মেয়ে এবং নরসিংদী সরকারী কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী।

এর আগে বুধবার দুপুরে সদর উপজেলার ৪ টার দিকে নরসিংদী সদর উপজেলার পাঁচদোনা এলাকায় অচেতন অবস্থায়  সাদিয়াকে রাস্তায় পাওয়া যায়। পরে এলাকার স্থানীয়রা পুলিশে খবর দিলে তাকে উদ্ধার করে এক পুলিশ সদস্য  ১০০ শয্যা বিশিষ্ট নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসে।

এর পর থেকে ওর পরিচয় বের করার জন্য নরসিংদীর বিভিন্ন মানুষ জন তাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট ও শেয়ার দিতে থাকেন। অল্প সময়ের মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট গুলো ভাইরাল হয়ে যায় এবং সবার নজরে আসে। পরিশেষে উদ্ধার হয় তার পরিচয়। তার পরিবার খোজ পেয়ে জেলা হাসপাতালে যোগাযোগ করে।

রহস্যজনক ভাবে কে বারা তাকে অচেতন করে রাস্তায় ফেলে রেখে, তার মৃত্যুতে এক ধূম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ ও পরিবার কেউ বলতে পারছেনা কি এমন হয়েছিল সাদিয়ার সাথে। 

নরসিংদী জেলা হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার সামিয়া পাঠান জানান, বিকেল ৩ টা ৫০ মিনিটে সাদিয়া আক্তারকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়, পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তার মৃত্যু হয়। তবে তার মৃত্যুর কারণ ময়নাতদন্তের পর বলা যাবে।

মাধবদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ কামরুজ্জামান জানান, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য নরসিংদী সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। পরিবারের পক্ষ থেকে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর তদন্ত সাপেক্ষে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


মন্তব্য