বান্দরবানে ব্যাংক ডাকাতি:

খাগড়াছড়িতে সব ব্যাংকে নিরাপত্তা জোরদার

ডাকাতি
  © ফাইল ছবি

সম্প্রতি বান্দরবানের রুমা ও থানচিতে ব্যাংকে ডাকাতির ঘটনার পর খাগড়াছড়ির সরকারি ও বেসরকারি সব ব্যাংকের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের পাশাপাশি বাড়ানো হয়েছে ব্যাংকের নিজস্ব নিরাপত্তারক্ষীও।

বান্দরবানের ঘটনার পর থেকেই খাগড়াছড়ির বিভিন্ন উপজেলায় ব্যাংকগুলোতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। বিভিন্ন ব্যাংকে পুলিশ সদস্যদের টহল দিতে দেখা গেছে।

পুবালী ব্যাংক পিএলসি মাটিরাঙ্গা উপশাখার ব্যবস্থাপক বায়েজীদ বলেন, কর্তৃপক্ষ ব্যাংকে নিরাপত্তা বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছে। নিজস্ব নিরাপত্তাকর্মী আছে। এরপরও আমরা সতর্ক আছি।

সোনালী ব্যাংক মাটিরাঙ্গা শাখার ব্যবস্থাপক মো. হাবিবুজ্জামান বলেন, বান্দরবানের ঘটনার পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে। পুলিশের একাধিক টিম ব্যাংক পরিদর্শনের পাশাপাশি নিরপাত্তায় দায়িত্ব পালন করছে।

ডাচ বাংলা ব্যাংক খাগড়াছড়ি জেলা শাখার ব্যবস্থাপক মো. নুরুউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ব্যাংকগুলোতে সরকারিভাবেই নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে। ফলে নিরাপত্তা নিয়ে সংকট নেই। এছাড়া ব্যাংকের নিজস্ব নিরাপত্তা ব্যবস্থা রয়েছে।

খাগড়াছড়ির পুলিশ সুপার মুক্তা ধর বলেন, ‘আমরা সবাইকে ম্যাসেজ দিয়েছি, তারা যেন সতর্ক থাকে। যতটুকু নিরাপত্তা দরকার ততটুকু ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

ব্যাংক ডাকাতির ঘটনা প্রসঙ্গে গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘পাহাড়ে ব্যাংক ডাকাতির একটা প্রচেষ্টা হয়েছে। আমাদের কাছে যা তথ্য আসছে, কুকি চীন গ্রুপটি এতে জড়িত রয়েছে। ইদানীং কুকি চীন আবার বিভিন্নভাবে তাদের অবস্থান জানান দিচ্ছে। এ বিষয়ে আমাদের যা যা করার, আমরা করব।

তিনি আরও বলেন, কুকি চীন আগেও বান্দরবানে একটি জায়গায় অবস্থান করে জঙ্গি বাহিনীর সঙ্গে আঁতাত করে একটা ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করেছিল। আমাদের র‌্যাব ও আর্মি সেই ঘাঁটি সরিয়ে দিয়েছে। ইদানীং কুকি চীন আবার বিভিন্নভাবে তাদের অবস্থান জানান দিচ্ছে।’


মন্তব্য