উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আজ:

তিন জনের বিরুদ্ধে আবুল মনসুরের লিখিত অভিযোগ 

নির্বাচনে
  © টিবিএম ফটো

ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে উখিয়া উপজেলায় আজ নির্বাচন। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে উখিয়া উপজেলায় ভোটগ্রহন অনুষ্ঠিত হবে বুধবার (২৯ মে) সকাল ৮ টা থেকে ব্যালট পেপারের মাধ্যমে ভোটগ্রহন শুরু হয়ে তা চলবে বিকাল ৪ টায় পর্যন্ত। এই উপজেলায় ১লাখ ৫১ হাজার ৫৬৪ জন ভোটার ভোট প্রদান করবেন।

উখিয়া উপজেলার ৬২টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে বেশ কিছু কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ন। তবে ঝুঁকিপূর্ন কেন্দ্রে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। এদিকে তৃতীয় ধাপের নির্বাচন উপলক্ষে এই উপজেলায় বুধবার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারী প্রতিষ্ঠান।

ভোটের একদিন আগে অর্থ্যাৎ গতকাল প্রভাব বিস্তারসহ ভোটারদের মাঝে ভয়ভীতি প্রদর্শনের অভিযোগ এনে রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আবুল মনসুর চৌধুরী। অভিযোগপত্রে তিনি উল্লেখ করেন,রত্নাপালং ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ভালুকিয়াপালং গ্রামের বাসিন্দা খাইরুল আলম চৌধুরী,রাজাপালং ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিন,পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার ও বালুখালী এলাকার বাসিন্দা ফজল কাদের চৌধুরী অত্যন্ত দূধর্ষ প্রকৃতির লোক হয়। সরকারি দলের প্রভাবশালী লোক হওয়ায় তারা গায়ের জোরে যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা সংগঠিত করতে কোন ধরনের দ্বিধাবোধ করেনা। তারা নিজ নিজ এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ার কারণে বখাটে প্রকৃতির লোকদের সন্ত্রাসী বাহিনী গঠন করে নির্বাচনী এলাকায় প্রভাব বিস্তারসহ সম্মানিত ভোটারদের ভয়ভীতি প্রদর্শন করার সম্ভাবনা বিদ্যমান বিধায়, অবাধ, সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ ও জনগণের অংশগ্রহণ মূলক প্রতিদ্বন্ধিতাপূর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের স্বার্থে তাদের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নজরদারিতে রাখার জন্য আবেদন করেন। 

দেড় লাখের অধিক ভোটারের রায়ে নির্ধারন হতে যাচ্ছে ১০ প্রার্থীর ভাগ্য। শেষ মুহুর্তে কে বিজয়ী হবেন সে আলোচনার ঝড় চলছে, পাড়া-মহলা,গ্রাম-গঞ্জের হাট বাজারে।

এদিকে এ নির্বাচনকে সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে উখিয়া থানা চত্বরে আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত নির্বাচনি ব্রিফিং নিয়ে সভা অনুষ্ঠিত হয়। পুলিশ ও আনসার সদস্যদের তাদের দায়িত্ব বন্টন এবং দেশ ও দশের স্বার্থে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের আহবান জানান উখিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শামীম হোসেন।

জেলা রির্টানিং অফিস সুত্র জানা গেছে, ভোটের পরিবেশ শান্ত রাখতে পুলিশ, র্যাব, বিজিবি, কোস্টগার্ড, আন আনসার বাহিনী মোতায়েন থাকবে। এছাড়াও জুডিশিয়াল, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশের স্টাইকিং ও মোবাইল টিম মোতায়েন থাকবে।

এই উপজেলার মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ২ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জন ও ভাইস চেয়ারম্যান (সংরক্ষিত) পদে ৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। 
এবারে এই উপজেলায় মোট ভোটার দেড় লাখের বেশি।

এদিকে ভোটের একদিন আগে মঙ্গলবার (২৮ মে) বিশেষ নিরাপত্তায় কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌছে দেয়া হয়েছে নির্বাচনী সরঞ্জাম। ভোট কেন্দ্র ও আশপাশে এলাকার নিরাপত্তায় টহলে রয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার তানভির হোসেন বলেন, অবাদ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ ভোটগ্রহনের লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে, এখন শুধু ভোটগ্রহনের অপেক্ষা। ভোটাররা যাতে নিরাপদে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন। সে জন্য কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার রয়েছে। কোন রকম অনিয়ম হলে বিধি অনুযায়ী তাৎক্ষণিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


মন্তব্য