৩ ভাবিকে ছুরি মেরে পালালেন দেবর

সুনামগঞ্জে  
  © প্রতীকী ছবি

সুনামগঞ্জে  পারিবারিক কলহের জের ধরে তিন ভাবিকে ছুরিকাঘাত করেছেন দেবর। এর মধ্যে মারা গেছেন একজন। অপর দুজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক। সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়নের আমড়িয়া গ্রামের জামাল মিয়ার বাড়িতে শনিবার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে ১৮ বছর বয়সী দেবর পলাতক।

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের সূত্রে জানা গেছে, আমড়িয়া গ্রামের জামাল মিয়ার চার ছেলে। এর মধ্যে তিনজন বিবাহিত। সবাই একই পরিবারে বসবাস করেন। তাঁদের মধ্যে পারিবারিক নানা ঝামেলা ছিল। এসবের জের ধরে আজ সকাল ১০টার দিকে ভাইদের সবার ছোটজন ঘরে থাকা তাঁর তিন ভাবি স্বপ্না বেগম (৩৫), মর্জিনা বেগম (৩০) ও ইয়াসমিনকে (২৬) ধারালো ছুরি দিয়ে এলোপাতাড়ি আঘাত করেন। আহত নারীরা চিৎকার শুরু করলে আইনুল হক পালিয়ে যান।

পরে প্রতিবেশীরা আহত তিন নারীকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক স্বপ্না বেগমকে মৃত ঘোষণা করেন। অন্য দুজনের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাঁদের সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বাদাঘাট দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এরশাদ মিয়া বলেন, ‘জামাল মিয়ার ছেলেরা কৃষিকাজ করে। তবে আইনুল হকের মানসিক সমস্যা ছিল বলে শুনেছি।’

নিহত নারীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ। বিশ্বম্ভরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযুক্ত আইনুল হককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।


মন্তব্য