খাবার হোটেলে দুই এসআইয়ের মারামারি, মাথা ফাটল একজনের

পুলিশ
  © সংগৃহিত

খুলনার কয়রা উপজেলায় পুলিশের এক উপপরিদর্শকের (এসআই) আঘাতে অপর এক উপপরিদর্শক (এসআই) আহত হয়েছেন। দুই পুলিশ কর্মকর্তার এমন মারামারিতে স্থানীয় বাসিন্দারা হতবাক হয়ে যান। শুক্রবার (৭ জুন) দুপুরে উপজেলার একটি খাবারের হোটেলে এই মারামারির ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর এসআই নিরঞ্জনকে পুলিশলাইনে সংযুক্ত করা হয়েছে।

কয়রা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এসআই নিরঞ্জন মণ্ডলের চেয়ারের আঘাতে এসআই মো. মাসুমের মাথা ফেটে যায়। দুপুর ২টার দিকে সদর উপজেলার আঁখি হোটেল নামে একটি খাবার হোটেলে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার খবর পেয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা থানায় পৌঁছে মীমাংসার চেষ্টা করেন।

স্থানীয়রা জানান, এসআই মাসুম আঁখি হোটেলে খাবার খেতে বসেন। কিছুক্ষণ পর একটি মোটরসাইকেলযোগে এসআই নিরাঞ্জন সেখানে যান। মোটরসাইকেল থেকে নেমেই তিনি এসআই মাসুমকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকেন। এসআই মাসুমও তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ করেন। এক পর্যায়ে এসআই নিরাঞ্জন হোটেলের একটি চেয়ার তুলে মাসুমকে মারধর করতে উদ্যত হন। এতে মাসুমও চেয়ার তুলে এগিয়ে যান। দুজনের মারামারির এক পর্যায়ে মাসুমের মাথা ফেটে যায়। পরে হোটেলে উপস্থিত লোকজন এসে তাদেরকে শান্ত করেন।

একটি সূত্রে জানা গেছে, একটি মোটরসাইকেল আটক করাকে কেন্দ্র করে থানার দুই এসআই মারামারিতে জড়িয়ে পড়েন।

এসআই নিরঞ্জনের বিরুদ্ধে আইনজীবী ও সাংবাদিকসহ একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে খারাপ আচরণ করার অভিযোগ রয়েছে। এ বিষয়টি নিয়ে গত মাসে কয়রা জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় আলোচনাও হয়।

সহকারী পুলিশ সুপার (ডি সার্কেল) মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পাবলিক প্লেসে এ ধরনের ঘটনা দুঃখজনক। উপ-পুলিশ পরিদর্শক নিরঞ্জনকে পুলিশলাইনে নেওয়া হয়েছে।


মন্তব্য