দুমকীতে উপজেলা চেয়ারম্যান মাল্টা কাওসার, ভাইস চেয়ারম্যান রুবেল ও নাজমুন শিরিন

পটুয়াখালী
  © টিবিএম ফটো

পটুয়াখালীর দুমকী উপজেলার খেটে খাওয়া মানুষের বিশেষ করে মা-বোনদের মন জয় করে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়ে ত্রিমুখী লড়াই সৃষ্টি করে মো: কাওসার আমিন হাওলাদার (কাপ পিরিচ) প্রতীকে বিজয় লাভ করেছেন। অপর দিকে পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন মাইনুল ইসলাম রুবেল ফরাজি ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন নাজমুন নাহার শিরিন।

রোববার (৯ জুন) ভোট গণনা শেষে রাতে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন সংশ্লিষ্ট রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

ব্যলটের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে ২৭টি কেন্দ্রের ১৭৯টি ভোট কক্ষে ৫৬.০৮ শতাংশ ভোট পড়েছে বলে জানিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা শাহিন মাহমুদ। তিনি আরও জানান, প্রদত্ত মোট ভোটের সংখ্যা ৪০ হাজার ২৪২ টি। এতে বৈধ ভোট রয়েছে ৩৯ হাজার ৩৬২ টি এবং বাতিলকৃত ভোট রয়েছে ৮৮০ টি।

ইউরোপের দেশ মাল্টা আ'লীগের সভাপতি কাওসার আমিন হাওলাদার কাপ-পিরিচ প্রতীকে ১৪ হাজার ১০৪ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রার্থী বর্তমান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ড. হারুন অর রশিদ হাওলাদার মোটরসাইকেল প্রতীকে পেয়েছেন ৯ হাজার ৪২ ভোট। এছাড়াও আ্যাডভোকেট মেহেদি হাসান মিজান আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ৮ হাজার ৪৪৯ ভোট, মো. শাহজাহান সিকদার দোয়াত কলম প্রতীকে পেয়েছেন ৬ হাজার ৭৮৯ ভোট ও ঘোড়া প্রতীকে মাওলানা রুহুল আমীন পেয়েছেন ৯৭৮ ভোট।

অপরদিকে পুরুষ ভাইস-চেয়ারম্যান পদে অ্যাডভোকেট মাইনুল ইসলাম রুবেল ফরাজী (টিউবওয়েল) প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৫ হাজার ৭৬৯ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো: মিজানুর রহমান মৃধা (তালা) প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৫ হাজার ‌২৭৮ ভোট। এছাড়াও রেজাউল হক রাজন চশমা প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৫ ভোট এবং বই প্রতীক নিয়ে মোহাম্মদ আ: রশিদ সরদার পেয়েছেন ২ হাজার ৯১৯ ভোট।

এদিকে হাঁস প্রতীকে ২১ হাজার ৭৪৪ ভোট পেয়ে মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন নাজমুন নাহার শিরিন। তার নিকটতম প্রার্থী সৈয়দা রেজওয়ানা হিমেল কলস প্রতীকে পেয়েছেন ১৪ হাজার ‌‌৭২৫ ভোট। অপর দিকে ফুটবল প্রতীক নিয়ে শিরিন আক্তার মিনু পেয়েছেন ২ হাজার ২৪৬ ভোট।

প্রসঙ্গত, ঘূর্ণিঝড় রেমালের কারনে স্থগিত হওয়া দুমকী উপজেলা পরিষদের ৫টি ইউনিয়নে মোট ভোটার ছিল ৭১ হাজার ৭৫৫জন। এতে পুরুষ ভোটার ৩৬ হাজার ১৭০ জন এবং মহিলা ভোটার ৩৫ হাজার ৫৮ জন।


মন্তব্য