৩৩ যাত্রী নিয়ে সেন্টমার্টিনে মিয়ানমারের ট্রলার

মিয়ানমার
  © সংগৃহীত

দীর্ঘদিন ধরেই মিয়ানমারের সামরিক জান্তা সরকারের সঙ্গে দেশটির বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সংঘর্ষ চলছে। এ যুদ্ধে প্রাণের ভয়ে শত শত সীমান্তরক্ষী বাহিনী বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। যদিও তাদের সবাইকে ফিরিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। 

এদিকে মিয়ানমারের রাখাইনের মংডুতে নতুন করে জান্তাবাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে যুদ্ধের তীব্রতা বেড়েছে। এমন পরিস্থিতিতে টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে আশ্রয়ের জন্য চেষ্টা করছেন রাখাইনের রোহিঙ্গারা। সেখানকার যুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যেই শুক্রবার (৫ জুলাই) সকালে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) ২ সশস্ত্র সদস্যসহ ৩৩ জন যাত্রী নিয়ে একটি ট্রলার সেন্টমার্টিন দ্বীপে ভিড়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সেন্টমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘আজ ভোরে রোহিঙ্গাবোঝাই একটি ট্রলার সেন্টমার্টিন দ্বীপে ভিড়েছে। ট্রলারের যাত্রীদের মধ্যে রয়েছেন মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) দুই সশস্ত্র সদস্য ও ৩১ জন রোহিঙ্গা। তারা ভারী বৃষ্টির মধ্যেই প্রাণ বাঁচাতে দ্বীপে আশ্রয় নিতে এসেছেন। বিষয়টি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে (বিজিবি) জানানো হয়েছে।’

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে টেকনাফ ইউএনও আদনান চৌধুরী বলেন, ‘মিয়ানমার থেকে একটি ট্রলার সেন্টমার্টিনে ভিড়েছে শুনেছি। সেখানে মিয়ানমারের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড পুলিশের (বিজিপি) দুই সশস্ত্র সদস্যও রয়েছেন। বিজিবির সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। তবে নতুন করে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে সীমান্ত ও নাফ নদীতে অবস্থান জোরদার করেছে বিজিবি ও কোস্ট গার্ড।’

এ বিষয়ে জানতে টেকনাফ-২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মহিউদ্দিন আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।


মন্তব্য