স্রোতে ভাঙলো সেতু, দুর্ভোগে ১০ গ্রামের মানুষ

ফেনী
  © সংগৃহীত

ফেনী সদর উপজেলার লেমুয়া ইউনিয়নের কালিদাস পাহালিয়া নদীর ওপরে অস্থায়ীভাবে তৈরি করা কাঠের সেতুটি ভেঙে গেছে। এতে দশ গ্রামের মানুষের যাতায়াতে দুর্ভোগ দেখা দিয়েছে।

বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণাধীন পিএসসি গার্ডার ব্রিজের পাশে বিকল্পভাবে চলাচলের জন্য কাঠের সেতুটি নির্মাণ করা হয়। সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার লেমুয়া ইউনিয়নের উত্তর চাঁদপুর, মধ্যচাঁদপুর, দক্ষিণ চাঁদপুর, নেয়ামতপুর, টংগীর পাড়, হাফেজিয়া ও তেরবাড়ীয়া প্রামের প্রায় ১০ হাজারের বেশি মানুষের জেলা শহর, শহরে স্বাস্থ্য সেবা, আইনি সেবা, ভূমি সেবা, ইউনিয়ন পরিষদ সেবা, শিক্ষা সেবা পাওয়ার জন্য যাতায়াতের দুর্ভোগ লাঘবে তড়িৎ ব্যবস্থা নিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

ওই এলাকার একমাত্র ভরসার কাঠের পুলটি লেমুয়া উচ্চ বিদ্যালয়, দক্ষিণ লেমুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, লেমুয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদরাসা, ইউনিয়ন পরিষদ, অফিস, বাজারের ক্রেতা বিক্রেতাসহ নিত্যদিনের চিকিৎসা ও হাটবাজারের যাওয়া সহস্রাধিক যাত্রী সাধারণ মানুষের।

এ বিষয়ে মো. আবদুল জব্বার, রহিম মিয়া, আবদুল হক, নিখিল দাসসহ আরও অনেকে জানান, দ্রুত কাঠের পুলটি নতুন করে নির্মাণ করে না দিলে কষ্ট করে প্রতিদিন পায়ে হেঁটে ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উল্টোপথে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে। বয়স্ক, শিশু, অসুস্থ রোগীদের পারাপারে অন্তহীন ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চৌধুরী এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী মামুন চৌধুরী বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে স্রোতের তোড়ে অস্থায়ীভাবে তৈরি কাঠের সেতুর একটি অংশ ভেঙে পড়ার খবর পেয়েছি। অল্প সময়ের মধ্যে এটি চলাচলের উপযোগী করে তোলা হবে।

ফেনী সদর উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী দীপ্ত দাশ গুপ্ত জানান, বর্ষাকালে কচুরিপানা এসে কাঠের পুলের নিচে জমা হয়ে যাওয়ায় পানির স্রোতে দ্রুত ভেঙে। এরই মধ্যে ঠিকাদারকে বলে দেওয়া হয়েছে জনদুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য।


মন্তব্য