জামিনে পেয়ে কর্মীর কাঁধে চড়ে ইউনিয়ন পরিষদে এলেন চেয়ারম্যান

পিরোজপুর
  © সংগৃহীত

পিরোজপুর নেছারাবাদ উপজেলার আটঘর কুড়িয়ানা ইউনিয়নের ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মিঠুন হালদার কর্মীর কাঁধে চড়ে ইউনিয়ন পরিষদে এলেন। এমন একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, চেয়ারম্যান মিঠুন হালদার তার রাজু শেখ নামে এক কর্মীর কাধে চড়ে ইউনিয়ন পরিষদে যাচ্ছেন। আর তার পিছনে তার কর্মী সমর্থকরা মিছিল করছে।

জানা গেছে, দীর্ঘ ৫ মাস কারাভোগের পরে হত্যা মামলায় জামিনে পেয়ে রোববার (৭ জুলাই) ওই চেয়ারম্যান নিজ ইউনিয়ন পরিষদে যান। এ সময় তার সাথে ছিল বিপুল সংখ্যক কর্মী সমর্থক। 

মিঠুন হালদার এ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান শেখর কুমার সিকদার হত্যা মামলার প্রধান আসামি। এ কারণে তিনি দীর্ঘদিন জেল হাজতে ছিলেন। জামিনে মুক্তি পেয়ে তিনি এলাকায় আসেন।

স্থানীয়রা জানান, চেয়ারম্যান মিঠুন হালদার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন মাহামুদকাঠি বাজারে আসলে স্থানীয় রাজু নামে একজন তাকে কাঁধে তুলে নিয়ে পরিষদে রওনা হন। এ সময় সহস্রাধিক সমর্থক আনন্দ মিছিল করে তাকে নিয়ে পরিষদে প্রবেশ করে।

মো. রাজু বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, চেয়ারম্যান আমাদের মাঝে ফিরে এসেছেন তাই তাকে কাঁধে করে নিয়ে আনন্দ মিছিল করেছি মাত্র।
 
মিছিল শেষে ইউনিয়ন পরিষদে এসে ইউপি চেয়ারম্যান শান্তি সমাবেশ করেন। সমাবেশ শেষে বাড়ি ফেরার পথে স্বপন দেউরী নামে নিহত চেয়ারম্যানের এক সমর্থক হামলার শিকার হন। স্বপন অভিযোগ করে বলেন, চেয়ারম্যান মিঠুনের লোকজন শান্তি সমাবেশ করে বাড়ি ফেরার পথে কুড়িয়ানা বাজারে আমাদের উপর হামলা করেছে। 

এ অভিযোগ অস্বীকার করে মিঠুন হালদার বলেন,  দীর্ঘ ৫ মাস পর পরিষদে আসলে হাজার হাজার নারী পুরুষ  আমাকে  ফুলের মালা পরিয়ে অভিনন্দন জানান। পরে সেখানে সমাবেশ শেষে আমার কর্মীরা কুড়িয়ানা বাজারে পৌঁছালে স্বপন দেউরীর নেতৃত্বে শান্তি বড়ালসহ বেশ কিছু লোক হামলা চালায়। আমি খবর পেয়ে পুলিশকে জানালে তারা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। 

এদিকে মিঠুন হালদার এলাকায় ফিরছেন এমন খবরে এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। সংঘর্ষের আশংকায় কুড়িয়ানা বাজারের ব্যবসায়ীরা দোকানপাঠ বন্ধ রাখেন। 

এ বিষয়ে নেছারাবাদ থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) এইচ এম শাহীন বলেন, মিঠুন চেয়ারম্যানের আগমনে উত্তেজনা সৃষ্টি হতে পারে এ আশংকায় সকাল থেকেই পুলিশ মোতায়েন করা ছিল। চেয়ারম্যান মিঠুন হালদার পরিষদ থেকে উপজেলা সদরে চলে যাওয়ার পর তার সমর্থকরা ট্রলার যোগে বাড়ি ফেরার পথে কুড়িয়ানা বাজারে উঠলে কিছুটা উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশের হস্তক্ষেপে কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে নাই।

উল্লেখ  চলতি বছরের গত ৩০ জানুয়ারি কুড়িয়ানা বাজারে সাবেক চেয়ারম্যান শেখর কুমার সিকদার নিহত হন। এ ঘটনায় তার স্ত্রী মালা রানী বাদী হয়ে নেছারাবাদ থানায় বর্তমান চেয়ারম্যান মিঠুন হালদারসহ কয়েকজনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় জামিনে মুক্তি পেয়ে  মিঠুন হালদার রোববার পরিষদে আসেন।


মন্তব্য