দুর্গাপূজায় পাঁচ হাজার টন ইলিশ চায় ভারত

ইলিশ
  © ফাইল ছবি

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উৎসব আসন্ন দুর্গাপুজা উপলক্ষে বাংলাদেশ থেকে এবারও পাঁচ হাজার টন ইলিশ মাছ আমদানি করতে চায় ভারত। তবে বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা রয়েছে গত বছরের চেয়ে বেশি রফতানি করার। ২০২২ সালে ২ হাজার ৯০০ টন পাঠানোর অনুমতি পেলেও রফতানিকারকরা এক হাজার ৩০০টন পাঠাতে পেরেছিলেন।

বাংলাদেশ বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, আসন্ন দুর্গাপুজা উপলক্ষে অন্যান্য বছরের মতো এবারও ভারতে ইলিশ রফতানির অনুমতি দিতে যাচ্ছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে প্রায় ১০০ প্রতিষ্ঠান ইলিশ রফতানির অনুমোদন চেয়ে আবেদন করেছে।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের রফতানি শাখা সূত্রে জানা গেছে, দুর্গাপুজা উপলক্ষে ভারতে এবারও ইলিশ রফতানির অনুমোদন দেওয়া হবে। তবে কী পরিমাণ অনুমোদন দেবে সেটি চূড়ান্ত হয়নি।

বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতের কোলকাতা থেকে প্রকাশিত আজকাল পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, যেসব প্রতিষ্ঠানকে বাংলাদেশ থেকে ইলিশ রফতানির অনুমতি দেওয়া হবে, তারা সে অনুযায়ী কাজ করছে কি না- তা কঠোর নজরদারিতে রাখবে সরকার।

এদিকে কলকাতা ফিশ ইম্পোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন আসন্ন দুর্গাপুজা-২০২৩ উপলক্ষে বাংলাদেশ থেকে ৫ হাজার টন ইলিশ আমদানি করতে চায়। ইতিমধ্যে সংগঠনটির পক্ষ থেকে কলকাতার বাংলাদেশ উপ-হাইকমিশনে চিঠি পাঠিয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়েছে, গত বছর পুজা উপলক্ষে ২ হাজার ৯০০ মেট্রিক টন ইলিশ রফতানির অনুমোদন দেওয়া হলেও মাত্র এক হাজার ৩০০ মেট্রিক টন ইলিশ ফতানি হয়েছিল। এ বছর তারা পাঁচ হাজার মেট্রিক টন ইলিশ আমদানি করতে চায় বাংলাদেশ থেকে। চিঠিতে আরো বলা হয়, ঢাকার ইলিশ শুধু রফতানিযোগ্য সুস্বাদু মাছই নয়, কলকাতার মানুষ এটাকে ঢাকার পাঠানো বহু মূল্যবান উপহার হিসেবে বিবেচনা করে। একই সঙ্গে উন্নত গুণাগুণ সমৃদ্ধ বড় সাইজের ইলিশ চেয়েছে কলকাতা।

উল্লেখ্য, ২০১২ সাল থেকে দুর্গাপুজার মৌসুমে প্রতি বছর কলকাতায় ইলিশ পাঠাচ্ছে বাংলাদেশ। কোলকাতায় পুজা উপলক্ষে ইশিল পাঠানোয় ঢাকার বাজারে ইলিশের দাম বেশি এবং নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্তদের অনেকের ইলিশের স্বাদ থেকে বঞ্ছিত হচ্ছেন।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ