চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ডের সদস্য হলেন পূর্ণিমা

পূর্ণিমা
  © ফাইল ছবি

বাংলাদেশি সিনেমার একসময়ের তুমুল জনপ্রিয় অভিনেত্রী দিলারা হানিফ পূর্ণিমা। দীর্ঘদিন ধরেই তাকে বড়পর্দায় দেখা যায়নি। তবে তাই বলে বসে নেই তিনি। আগামী এক বছরের জন্য বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড পুনর্গঠন করা হয়েছে। এতে প্রথমবারের মতো সদস্য হয়েছেন ঢাকাই সিনেমার এই চিত্রনায়িকা।

আজ রবিবার (১২ মে) এই বোর্ড গঠন করা হয়।

সেন্সর বোর্ড সূত্রে জানা যায়, নতুন এই বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন তথ্য সচিব। তিনি আগামী একবছর সেন্সর বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া তথ্য মন্ত্রণালয়সহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের ছয়জন সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন।

পূর্ণিমা ছাড়াও সদস্য হিসেবে রয়েছেন চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি কাজী হায়াৎ, অভিনেত্রী সুজাতা আজিম, চলচ্চিত্র প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু, চলচ্চিত্র পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম, অভিনেত্রী অরুণা বিশ্বাস, অভিনেতা আজিজুল হাকিম, অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী ও সেন্সর বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান খালেদা বেগম।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে জাকির হোসেন রাজু পরিচালিত 'এ জীবন তোমার আমার' সিনেমার মাধ্যমে ঢাকাই চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় পূর্ণিমার। এরপর একাধিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। কাজী হায়াৎ পরিচালিত 'ওরা আমাকে ভাল হতে দিল না' চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য ২০১০ সালে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে তিনি তার প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন।

২০০৫ সালের ৬ সেপ্টেম্বর ব্যবসায়ী মোস্তাক কিবরিয়ার সঙ্গে ১ম বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। তার সাথে ডিভোর্স হয় ২০০৭ সালের ১৫ মে। ২০০৭ সালের ৪ নভেম্বর পারিবারিকভাবে আহমেদ জামাল ফাহাদকে বিয়ে করেন। ২০১৪ সালের ১৩ এপ্রিল তিনি প্রথম কন্যা সন্তানের মা হন। তার মেয়ের নাম আরশিয়া উমাইজা।[৪] ফাহাদ জামালের সাথে বিচ্ছেদ ঘটার পর ২০২২ সালের ২৭ মে তিনি আশফাকুর রহমান রবিনের সাথে তৃতীয়বার বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।

পূর্ণিমা অভিনীত জনপ্রিয় চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে রয়েছে- এফ আই মানিক পরিচালিত অপরাধ-নাট্যধর্মী লাল দরিয়া (২০০২), মতিউর রহমান পানু পরিচালিত প্রণয়ধর্মী মনের মাঝে তুমি (২০০৩), চাষী নজরুল ইসলাম পরিচালিত যুদ্ধভিত্তিক মেঘের পরে মেঘ (২০০৪) ও নাট্যধর্মী সুভা, এবং এস এ হক অলিক পরিচালিত প্রণয়ধর্মী হৃদয়ের কথা (২০০৬) ও আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা (২০০৮)। পূর্ণিমার চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় রিয়াজের বিপরীতে। রিয়াজের বিপরীতেই ২৫টির বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন।


মন্তব্য