বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক হলেন অভিনেতা টুটুল

টুটুল
অভিনেতা টুটুল চৌধুরী (বামে) ও শবনম ফারিয়া  © ফাইল ছবি

একসময়ের ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেতা টুটুল চৌধুরী। পাঁচ শতাধিক সিঙ্গেল নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি। করেছেন থিয়েটারও। তার আরেকটি পরিচয় আছে। তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক। 

আজ রবিবার (৯ জুন) বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে টুটুল চৌধুরীকে পরিচালক পদে পদোন্নতি পত্র দেয়া হয়েছে। এর আগে তিনি ব্যাংকটির অতিরিক্ত পরিচালক (জিএম) পদে কর্মরত ছিলেন।

১৯৯৯ সালে সহকারী পরিচালক পদে বাংলাদেশ ব্যাংকে যোগদান করেছিলেন টুটুল চৌধুরী। এরপর তিনি উপ-পরিচালক, যুগ্ম পরিচালক, অতিরিক্ত পরিচালক পদগুলোতে দীর্ঘ দুই যুগের বেশি সময় ধরে কর্মরত আছেন। এখন তিনি পঞ্চম পদন্নোতি পেয়ে পরিচালক হয়েছেন।

এ বিষয়ে টুটুল চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, অফিসার পদে যোগদান করেছিলাম। ছোটবেলা থেকে প্রয়াত আবদুল্লাহ আল মামুন ভাইয়ের থিয়েটারে যুক্ত ছিলাম। ব্যাংকে চাকরী করলেও অভিনয়ের প্রতি আমি সবসময় প্যাশনেট। অফিস থেকে অনুমতি নিয়ে অভিনয় করছি। অফিস করে শুটিং করতে হয়। ছুটির দিনে বিশ্রাম না নিয়ে শুটিং করেছি। দুটো মেইনটেইন করতে যথেষ্ট পরিশ্রম করতে হয়েছে; এখনো করে যাচ্ছি।

জনপ্রিয় এ অভিনেতা বলেন, ব্যাংক এবং মিডিয়া দুই মাধ্যমেই কলিগরা আমাকে যথেষ্ট সাপোর্ট করেছেন। তাদের কাছে সবসময় কৃতজ্ঞতা জানাই। অভিনয় নিয়েও আমার ব্যস্ততা কম নয়। চারটি বেসরকারি টিভি আমার সিরিয়াল প্রচার হচ্ছে। সেই সঙ্গে সিঙ্গেল নাটকও নিয়মিত করে যাচ্ছি। দীর্ঘ অভিনয় জীবনে দর্শক আমাকে অভিনেতা হিসেবে আপন করে নিয়েছেন, এই ভালোবাসা সবসময় পেতে চাই।

তিনি আরও বলেন, ব্যাংকের বড় পদে কাজ করলেও অভিনয়কে আমি প্রচণ্ড ভালোবাসি। এ কারণে ছোটবেলা থেকে মঞ্চ থিয়েটারের সঙ্গে যুক্ত। আমার এই ভালোবাসার জায়গাটাকে আমার কলিগরাও উৎসাহ করেন। তারা বলেন, আপনি আমাদের ব্যাংকের গর্ব। বিষয়টি আমারও ভালো লাগে। কাজের প্রেরণা পাই এবং মনের মধ্যে অন্যরকম এক আত্ম তৃপ্তি অনুভব করি।

২০২২ সালে অঞ্জন আইচ পরিচালিত ‘আগামীকাল’ সিনেমায় গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায় টুটুল চৌধুরীকে। তার আরেক ছবি ‘কানামাছি’ মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। বর্তমানে বকুলপুর, প্রবাসী পরিবার, জাদুনগরসহ আরও একাধিক সিরিয়ালে তিনি অভিনয় করে যাচ্ছেন তিনি। ব্যাংকার এবং অভিনেতা পরিচয়ের পাশাপাশি টুটুল চৌধুরী একজন শিক্ষা উদ্যোক্তা। তিনি সহজপাঠ্য স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপ্যাল।


মন্তব্য