যা ছিলো পরী-সাকলায়েনের ১ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডের ভাইরাল ভিডিওতে

পরী-সাকলায়েন
  © ফাইল ছবি

চলচ্চিত্র অভিনেত্রী পরীমণির সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের জেরে চাকরি হারাচ্ছেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) গুলশান বিভাগের অতিরিক্ত উপকমিশনারের (এডিসি) দায়িত্বে থাকা গোলাম সাকলায়েন।

গোয়েন্দা-গুলশান বিভাগের এডিসির দায়িত্বে থাকার সময় অভিনেত্রী পরীমণির সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কে জড়ান তিনি। তা নিয়ে আলোচনা শুরুর পর প্রথমে সাকলায়েনকে ডিবি থেকে সরিয়ে মিরপুরের পাবলিক অর্ডার ম্যানেজমেন্টে (পিওএম) সংযুক্ত করা হয়েছিল। পরে সেখান থেকে তাকে ঝিনাইদহ ইনসার্ভিস ট্রেনিং সেন্টারে বদলি করা হয়। এবার পরীকাণ্ডে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠানোর আবেদন করা হয়েছে সেই সাকলায়েনকে।

ঘটনার শুরু যেখান থেকে: ২০২১ সালে পরীমণি ও ডিবি পুলিশের এডিশনাল এসপি গোলাম সাকলায়েনের একটি শর্ট ভিডিও সারা দেশে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে এবং তুমুল সমালোচনার জন্ম দেয়। ওই ভিডিও ভাইরাল হতেই পুলিশ ও সরকারের মারাত্মক ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়। এরপরই সাকলায়েনের বিরুদ্ধে একের পর এক তদন্ত শুরু হয়। চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবদেন হাতে পেয়ে তাকে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠাচ্ছে সরকার। ইতোমধ্যে এই মর্মে একটি প্রজ্ঞাপনও জারি হয়েছে।

সে সময় প্রকাশিত ১ মিনিট ৩৯ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, নীল ও কালো বেলুনে সুসজ্জিত একটি কক্ষ, যেখানে রোমান্সে মাতোয়ারা হয়ে আছেন পরীমণি ও গোলাম সাকলায়েন। দুজনে বেশ হাস্যোজ্জ্বল ভঙ্গিতে ছিল। যেখানে সাকলাইনের হাত ধরে পরীমণি কেক কাটছেন এবং পরীমণি সাকলাইনকে উইশ করছেন হ্যাপি বার্থডে টু ইউ বলে।

একপর্যায়ে পরীমণি সাকলায়েনকে মুখে কেক তুলে দেন এবং সাকলায়েন পরীমণির মুখে কেক তুলে দেন। কেক খাইয়ে দেওয়া অবস্থায় পরীমণি সাকলাইনের ঠোঁটে চুমু দিতেও দেখা যায় পরীকে। ভিডিওর এক পর্যায়ে দেখা যায় কেক খাইয়ে দেওয়া অবস্থায় পরীমণি তার মুখে কেক নিয়ে সাকলাইনের মুখে ধরেন এবং দুজনে রোমাঞ্চকরভাবে কেকের মধ্যে কামড় দেন।

ভিডিও শেষ পর্যায়ে পরীমণিকে হাত তুলে কোমর দুলিয়ে নাচতেও দেখা যায় যা উপভোগ করেন গোলাম সাকলায়েন।

এই ঘটনায় গত ১৩ জুন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের শৃঙ্খালা-২ শাখা থেকে উপসচিব রোকেয়া পারভিন জুঁই স্বাক্ষরিত এক প্রতিবেদনে তাকে বাধ্যতামূলক অবসর প্রদান করার জন্য দরখাস্ত করা হয়।

শৃঙ্খালা শাখার প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, সাকলায়েন ধারাবাহিকভাবে নায়িকা পরীমণির বাসায় নিয়মিত রাত্রি যাপন করতে শুরু করেন। বিভিন্ন সময়ে (দিনে ও রাতে) নায়িকা পরীমণির বাসায় সাকলায়েন অবস্থান করেছেন বলে মোবাইলের ফরেনসিক রিপোর্ট দেখে প্রমাণ পাওয়া যায়।

রিপোর্ট পর্যালোচনায় দেখা যায়, তার ও পরীমণির আদান-প্রদানকৃত মেসেজসমূহ (২৯ জুলাই, ২০২১ তারিখ হতে ৩ আগস্ট, ২০২১ তারিখ পর্যন্ত) সামসুন্নাহার স্মৃতি ওরফে পরীমণির ফেসবুক আইডি ও গোলাম সাকলায়েন সিথিল নামে ফেসবুক মেসেঞ্জারে কথোপকথন এবং তাদের হোয়াটসঅ্যাপ নম্বরে (১১ জুলাই, ২০২১ তারিখ হতে ৪ আগস্ট, ২০২১ তারিখ পর্যন্ত) কথোপকথন সাধারণ পরিচিতি বা পেশাগত প্রয়োজনে স্থাপিত কোনো সম্পর্কের নয়। বরং অনৈতিক প্রেমের সম্পর্ক।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ১ আগস্ট, ২০২১ তারিখ ভোর ৬টা থেকে ২ আগস্ট, ২০২১ তারিখ রাত ৩টা পর্যন্ত রাজারবাগ মধুমতি পুলিশ অফিসার্স কোয়ার্টার্সে নায়িকা পরীমণির যাতায়াতের ধারণকৃত সিসিটিভি ফুটেজের ফরেনসিক প্রতিবেদন বিশ্লেষণেও প্রমাণ পাওয়া যায়।

সাকলায়েন বিবাহিত ও এক সন্তানের বাবা হওয়া সত্ত্বেও পরীমণির সঙ্গে তার বিবাহবহির্ভূত অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন, পরীমণির সঙ্গে জন্মদিন উদযাপন ও নিজের সরকারি বাসভবনে নিজ স্ত্রীর অবর্তমানে সময় কাটানোর মতো ঘটনা বিভিন্ন প্রচারমাধ্যমে তা প্রচারিত হওয়ায় সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। উল্লিখিত অভিযোগে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা হয়।


মন্তব্য