‘অপু বিশ্বাসের ভেতরটা দুর্গন্ধময়’

অপু বিশ্বাস
  © সংগৃৃহীত

অপু বিশ্বাস-শবনম বুবলীর মধ্যে শাকিব খানকে কেন্দ্র করে বিরাজ করছে দা-কুঁমড়ার সম্পর্ক। একজনের কথা আরেকজনের কাছে যেন বিষ মনে হয়। সে কারণে প্রায়ই তারা বাক্য-যুদ্ধে নেমে পড়েন।

এই তো সবশেষ একটি সাক্ষাৎকারে শাকিবকে ‘স্বামী’ বলে সম্বোধন করেছিলেন বুবলী। এরপর ফেসবুকে তাকে তাচ্ছিল্য করেন অপু বিশ্বাস। ব্যাঙ্গাত্মক ক্যাপশনও লেখেন। গণমাধ্যমে নেতিবাচক কথাও বলেন। ফলে কয়েকদিন ঝিমিয়ে থাকা দ্বন্দ্ব পুনরায় মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে।

তবে অপু বিশ্বাসের নেতিবাচক কথায় পাত্তা দিচ্ছেন না বুবলী। জানালেন, শাকিব তার পরিবার। সারাজীবন তার নাম উচ্চারণ করবেন। তিনি বলেন— সবচেয়ে হাস্যকর কথা হলো-উনি তার নিঃশ্বাসের থেকেও বুবলী নামটা বেশি নেন। তার সব জায়গায় শুধু বুবলী বুবলী। ভাইরাল হওয়ার জন্য এমন কিছু নেই যা করছেন না। বুবলী নাম নিতে নিতে এমনই মানসিক রোগী হয়ে গিয়েছেন। কোথাও গেলে তাদের শিখিয়ে দেন, আমার নাম নিয়ে প্রশ্ন করতে যেন উনি একটু ভাইরাল হন। আমি আর আমার ছেলে এখন তার একমাত্র ক্যারিয়ার আলোচনায় থাকার। এমনকি জাতীয় টেলিভিশন পর্দায় কীসব উদাহরণ দিচ্ছেন যার কোনো মানেই নেই! তার সঙ্গে কী কী নোংরা আপত্তিকর শব্দ ব্যবহার করছেন, যেটা খুব লজ্জাজনক। সবসময় তার মুখে দুর্গন্ধময় শব্দগুলো থাকে। তার কারণ তার ভেতরটাও এ রকম।

অপু বিশ্বাসকে হুশিয়ারি দিয়ে বুবলী আরও বলেন, তিনি ভেবেছেন সবসময় আমাকে আর আমার ছেলেকে নিয়ে মিথ্যাচার করবেন আর আমি বরাবরের মতোই চুপ থাকব। কখনওই না। কারণ, তাকে নিয়ে কথা বলার কখনও আমার রুচি হয় না। কিন্তু যখন দেখছি তিনি তার নিজের স্বার্থসিদ্ধির জন্য আদাজল খেয়ে নেমেছেন শেহজাদকে তার বাবার থেকে আলাদা করার জন্য, তখন আমি চুপ থাকব না। এসব নিয়ে তিনি সারাক্ষণ বাজে গেমপ্ল্যান করে।

শাকিব খানের প্রাক্তন স্ত্রী অপু বিশ্বাস। ২০১৮ সালে তাদের বিচ্ছেদের পর বুবলীকে বিয়ে করেন। তবে বুবলীর সঙ্গেও বেশিদিন সংসার করা হয়নি। বর্তমানে আলাদা থাকছেন এই জুটি।

বুবলী-অপু বিশ্বাস দুজনকেই নিজের জীবনের অতীত বলে মন্তব্য করেছেন শাকিব খান। তবে বুবলীর দাবি, এখনও তাদের মাঝে বিচ্ছেদ হয়নি। সন্তানের কথা চিন্তা করেই সেটা করেননি।


মন্তব্য