একসঙ্গে ৩টি স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করল ইরান

ইরান
  © ইরনা

১৯৮০ সাল থেকে পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও নিজেদের ক্ষমতা জানান দিয়ে চলেছে ইসলামী প্রজাতন্ত্রী ইরান। ফিলিস্তিন-ইসরায়েল যুদ্ধের পর থেকে একের পর এক অস্ত্রের পরীক্ষা চালাচ্ছে দেশটি। নতুন করে অস্ত্রসম্ভার সামনে আনার পর এবার একসাথে তিনটি স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছে দেশটি। 

আজ রবিবার (২৮ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। এছাড়া আরব নিউজ, ইরনা, টাইমস অব ইসরায়েল, তেহরান টাইমস, ভয়েস অব আমেরিকার খবরেও একই তথ্য জানানো হয়েছে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, দেশটি প্রথমবারের মতো একসঙ্গে তিনটি স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এসব স্যাটেলাইট উদ্ভাবন করেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এসব স্যাটেলাইটের মধ্যে একটি ৩২ কেজি (৭০ পাউন্ড) এবং বাকি দুটি ন্যানো স্যাটেলাইট। এ দুটির ওজন ১০ কেজির নিচে। এসব স্যাটেলাইট ৪৫০ কিলেমিটার দূরের সর্বনিম্ন কক্ষপথে পাঠানো হয়েছে। ন্যানো স্যাটেলাইটের মাধ্যমে ন্যারোব্যান্ড কমিউনিকেশন এবং ভূতাত্ত্বিক অবস্থান প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা হবে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

দেশটির উদ্ভাবন করা বড় স্যাটেলাইটের নাম মাহদা। এটি ইরানের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নির্মাণ করেছে। এর মাধ্যমে সিমোর্গ রকেটের সাহায্যে মহাকাশে একাধিক কার্গো পাঠানোর নির্ভুলতার পরীক্ষা চালানো হয়েছে।

এর আগে গত ২১ জানুয়ারি এসিবি নিউজ জানায়, মধ্যপ্রাচ্যে চরম উত্তেজনার মধ্যেই সফলভাবে নতুন একটি স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করেছে ইরান। সোরাইয়া নামের ওই স্যাটেলাইটটি ৭৫০ কিলোমিটার দূরের কক্ষপথে সফলভাবে পৌঁছানো হয়েছে। এটি ইরানের ইতিহাসে সর্বোচ্চ উচ্চতায় পৌঁছানো স্যাটেলাইট।

কায়েম-ওয়ান হান্ড্রেড স্যাটেলাইট ক্যারিয়ারের মাধ্যমে ‘সুরাইয়া’ স্যাটেলাইটকে মহাকাশে স্থাপন করা হয়েছে। এটি ইরানের প্রথম তিন ধাপের সলিড ফুয়েল পরিচালিত রকেট যা ১০০ কেজি পর্যন্ত ওজন বহন করতে পারে।

ইরানের নতুন এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে যুক্তরাষ্ট্র, ইসরায়েলসহ পশ্চিমাদের মাঝে উদ্বেগ বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ তেহরান ৭৫০ কিলোমিটার দূরে স্যাটেলাইট পাঠানোর মাধ্যমে শক্তিশালী ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র এবং পারমাণবিক আকাঙ্ক্ষার বিষয়টি জানান দিচ্ছে বলে মত সামরিক বিশ্লেষকদের। শুধু তাই নয়, ইরানের নতুন স্যাটেলাইট ইতোমধ্যে টেলিমেট্রি ডেটা পাঠানো শুরু করেছে।

মধ্যপ্রাচ্যের শক্তিশালী এই দেশটি নতুন করে স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করায় অনেকটা অবাক হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রসহ তাদের পশ্চিমা মিত্ররা। কারণ ইরান কিছুদিন আগেও জানিয়েছে, তারা কোনো মহাকাশ প্রোগ্রাম চালাচ্ছে না। মূলত দেশটি তাদের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা আড়াল করতে এমনটা বলেছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, ইরানের সঙ্গে ইসরায়েলের বিরোধ চলছে। তেহরান ইসরায়েলকে ধ্বংস করার জন্য কী করতে পারে তা কেউ কল্পনাও করতে পারবে না। ইরানকে অক্টোপাসের প্রধানের সঙ্গে তুলনা করে নেতানিয়াহু বলেন, হুতি থেকে হিজবুল্লাহ, হিজবুল্লাহ থেকে হামাস পর্যন্ত চারদিকে ইরানের তাঁবু দেখতে পাচ্ছে ইসরায়েল।


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ