মক্কায় হাজীদের থাকার জন্য ৪,০০০ ভবনকে লাইসেন্স দেবে সৌদি

হজ্জ
  © এএফপি (ফাইল ছবি)

মক্কায় আসন্ন হজ তীর্থযাত্রার মৌসুমে হাজীদের থাকার জন্য বিশাল পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। প্রায় ২ মিলিয়ন (২০ লাখ) হাজির থাকার ব্যবস্থার পরিকল্পনা সাজাচ্ছে সৌদি আরব। 

আজ রবিবার (২৮ জানুয়ারি) মক্কার মেয়রের দপ্তরের মুখপাত্র ওসামা জায়াতুনি এ তথ্য জানিয়েছে। খবর গালফ নিউজের।

ওসামা জায়তুনি বলেছেন, মক্কা সিটির মেয়র দপ্তর এবার চার হাজার ভবনকে লাইসেন্স দেওয়ার পরিকল্পনা করছে। যেগুলোতে ৫ লাখ রুম থাকবে। আর এসব রুমে থাকবেন ২০ লাখ হাজি। ইতিমধ্যে এক হাজার ভবনকে লাইসেন্স দেওয়াও হয়েছে।

সৌদির টিভি চ্যানেল আল এখবারিয়াকে মক্কার এ কর্মকর্তা আরও জানিয়েছেন, তারা আশা করছেন, গত বছরের তুলনায় এ বছর হাজির সংখ্যা আরও বাড়বে।

গত বছর ১৮ লাখ মানুষ পবিত্র হজ পালন করেন। বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি দেখা দেওয়ার পর— গেলো বছরই কোনো বিধিনিষেধ ছাড়া হজ পালিত হয়।

পবিত্র নগরী মক্কায় হাজিদের থাকার লাইসেন্স চেয়ে অনেক আবেদন আসছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। এই আবেদন রজব মাসের শেষ পর্যন্ত নেওয়া হবে। ইংরেজি বছর অনুযায়ী, আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি রজব মাস শেষ হবে।

এদিকে এবার হজে হাজিদের থাকার জায়গার নিয়ম-কানুনে পরিবর্তন আনা হয়েছে। আগে নির্দিষ্ট দেশের জন্য নির্দিষ্ট স্থান বরাদ্দ থাকত। তবে এবার যেসব দেশ আগে হজের প্রক্রিয়া শেষ করবে সেসব দেশের হাজিরা যথাযোগ্য স্থানে থাকার সুযোগ পাবেন বলে জানিয়েছে সৌদি আরব।


মন্তব্য