বাংলাদেশ সীমান্তের কাছে মিয়ানমারের সামরিক হেলিকপ্টার ভূপাতিত

মিয়ানমার

বাংলাদেশের সীমান্ত ঘেঁষা মিয়ানমারের চিন রাজ্যে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর একটি হেলিকপ্টার ভূপাতিত করেছে বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মি (এএ)। মিয়ানমারের সংবাদমাধ্যম ইরাবতির প্রতিবেদনে বলা হয়, মিয়ানমারের রাখাইন অঞ্চলের বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মি (এএ) একটি সামরিক হেলিকপ্টার গুলি করে ভূপাতিত করেছে। আরাকান আর্মি ভূপাতিত হেলিকপ্টারের একাধিক ছবিও প্রকাশ করেছে। গতকাল বুধবার (৭ ফেব্রুয়ারি) ভূপাতিত হেলিকপ্টারটির ছবি প্রকাশ করা হয়।

আরাকান আর্মির মুখপাত্র খিয়াং থুখা ইরাবতিকে বলেছেন, ‘পালেতওয়া শহরে তীব্র সংঘর্ষের সময় আমরা একটি হেলিকপ্টার ভূপাতিত করেছি। আমরা গুলি করার পর গত ১৩ জানুয়ারি হেলিকপ্টারটি পাই নামক পাহাড়ের কাছে ঘন বনের মধ্যে গিয়ে বিধ্বস্ত হয়। এই এলাকার পাশে কাঙ্খা নামক পাহাড়ে জান্তাবাহিনীর একটি ঘাঁটিও ছিল। গতকাল বুধবার আমরা ঘাঁটিটি দখলের পর এই হেলিকপ্টারটির ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পেয়েছি।’  

শহরটিতে বিদ্রোহী গোষ্ঠী ও জান্তাবাহিনীর মধ্যে তীব্র লড়াই চলছে। মাঝে বিদ্রোহীরা দাবি করেছিল, তারা শহরটির নিয়ন্ত্রণ নিয়েছে। 

প্রসঙ্গত, এই দুটি পাহাড়ই বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী জেলা বান্দরবান সীমান্তে অবস্থিত। গত ১৩ জানুয়ারি  আরাকান আর্মি চিন রাজ্যের এই শহরটি দখল করে নেয়। তার আগে টানা দুই মাস ধরে জান্তাবাহিনীর সঙ্গে লড়াই করে আরাকান আর্মি। 

এর আগে, গত বছরের অক্টোবরে মিয়ানমার ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স আর্মি (এমএনডিএএ), তা’আং ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি (টিএনএলএ) এবং আরাকান আর্মি (এএ) সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে থ্রি ব্রাদার্স অ্যালায়েন্স। গত অক্টোবরে শান রাজ্যে এই জোট জান্তাবিরোধী ‘অপারেশন-১০২৭’ শুরু করে। এই অপারেশনে বেশ সাফল্যও লাভ করে জোট। পরে নভেম্বরের মাঝামাঝি সশস্ত্র জোট বাহিনী অভিযান শুরু করে চিন রাজ্যে।


মন্তব্য