বিমানে ন্যাপকিনে লিখে পাঠালেন প্রস্তাব, ৬ মিনিটেই ডাক!

বিমান
  © ফাইল ছবি

একই প্লেনে যাত্রা করছিলেন মন্ত্রী ও ব্যবসায়ী। কিন্তু নিরাপত্তার কারণে মন্ত্রীর কাছে পৌঁছানো ছিল কঠিন ব্যাপার। তাই বিমানবালার দেওয়া ন্যাপকিনে প্রকল্পের প্রস্তাব লিখে মন্ত্রীর কাছে পাঠালেন তিনি। অদ্ভুত হলেও সত্যি প্লেন অবতরণের ৬ মিনিটের মধ্যেই মন্ত্রণালয় থেকে ফোন পান ব্যবসায়ী।

ঘটনাটি ভারতের। সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, গত ২ ফেব্রুয়ারি মধ্যরাতে দিল্লি থেকে কলকাতা ফিরছিলেন ব্যবসায়ী অক্ষয় সাতনালিওয়ালা। আকাশে ওড়ার কিছুক্ষণ পরেই দেখতে পান একই প্লেনে রয়েছেন ভারতের রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। অক্ষয়ের একটি কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কোম্পানি আছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, রেল কীভাবে কঠিন এবং অন্য বর্জ্য পরিবহনের সস্তা মাধ্যম হয়ে উঠতে পারে তা নিয়ে মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করতে চেয়েছিলেন অক্ষয়। কিন্তু নিরাপত্তার কারণে তার অনুরোধ রাখতে পারেননি বিমানবালা। তাই সময় নষ্ট না করে বিমানবালার দেওয়া ন্যাপকিনে নিজের প্রস্তাবের কথা লিখে মন্ত্রীর কাছে পাঠিয়ে দেন অক্ষয়।

নিজের পরিচয় জানিয়ে তিনি লেখেন, ‘আপনি যদি অনুমতি দেন, তবে রেলওয়ে কীভাবে সাপ্লাই চেনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠতে পারে, তা নিয়ে আলোচনা করতে পারি। এই উদ্যোগ প্রধানমন্ত্রীর স্বচ্ছ ভারত অভিযানে অবদান রাখতে পারে।’

এদিকে বিমানবন্দরে নামার ৬ মিনিটের মধ্যেই অক্ষয়ের কাছে একটি ফোন আসে। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ তাকে জানায়, পূর্ব রেলের জেনারেল ম্যানেজার মিলিন্দ কে দেউস্কর তাকে খুঁজছেন। ফোনে ব্যবসায়ীকে তার প্রস্তাব নিয়ে আলোচনায় বসার কথা জানানো হয়। ইতোমধ্যে সেই আলোচনা সম্পন্ন হয়েছে।

আলোচনায় কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সম্পর্কে ব্যাখ্যা করেন অক্ষয়। পাশাপাশি রেলওয়ে কীভাবে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার সহজ এবং সাশ্রয়ী মাধ্যম হতে পারে তাও উল্লেখ করেন তিনি। সেই সঙ্গে তার কোম্পানি কীভাবে রেলের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করতে পারে, তার এক রূপরেখাও তুলে ধরেন।


মন্তব্য