ইসরায়েলবিরোধী বিক্ষোভ দেখায় চাকরি হারান গুগলকর্মী!

ইসরায়েল
  © ফাইল ছবি

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে আমেরিকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ইসরায়েলবিরোধী বিক্ষোভ চলছে। এই বিক্ষোভ দমনে কঠোর অবস্থান নিয়েছে বাইডেন প্রশাসন। তবে শুধু সরকারই নয়, কঠোর অবস্থান নিয়েছে দেশটির বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ও প্রতিষ্ঠানও। এদিকে ইসরালের সঙ্গে গুগল কোম্পানির ক্লাউড কম্পিউটিং চুক্তি প্রকল্প নিম্বাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় গেল এপ্রিল মাসে ২৮ জন কর্মচারীকে বরখাস্ত করা হয়। বরখাস্তকৃত কর্মীরা ইসরায়েলের সঙ্গে ওই প্রকল্প নিয়ে আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়া ও নিউইয়র্কের গুগল অফিসে অবস্থান বিক্ষোভ করেছিল।

গুগল ক্লাউডের সিইও থমাস কুরিয়ানের অফিসে কয়েকজন কর্মচারীকে গ্রেপ্তারও করা হয়।

‘দ্য ভার্জ’–এর এক প্রতিবেদনের দাবির বরাতে হিন্দুস্থান টাইমস জানিয়েছে, গুগল শুধু প্রতিবাদকারী কর্মীদেই বরখাস্তই করেনি, নিছক বিক্ষোভ দেখছিল এমন কর্মীও চাকরি হারিয়েছে। গুগলের একজন প্রাক্তণ কর্মচারী ‘দ্য ভার্জ’কে বলেছেন, তাঁকে শুধু বিক্ষোভ দেখা ও বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে মাত্র ‘চার মিনিট’ কথা বলার জন্য বরখাস্ত করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে নাম উল্লেখ না করে ওই কর্মচারী সম্পর্কে বলা হয়েছে, তিনি ৩ বছর ধরে কোম্পানিতে প্রকৌশলী হিসেবে কাজ করেছেন। কোম্পানিতে বিক্ষোভ দেখার কারণে তাঁকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

বরখাস্ত ওই কর্মীর দাবি, তিনি গুগলের নিউইয়র্ক অফিসের ১০ তলায় দুপুরের খাবারের সময় প্রতিবদাকারীদের অবস্থানের দৃশ্যটি দেখেছিলেন। তিনি প্রায় ২০ জনকে একই রকম টি-শার্ট পরে মেঝেতে বসে থাকতে দেখেছিলেন। পরে প্রতিবাদকারী কর্মচারীরা কাজের জায়গায় (ডেস্কে) ফিরে এলে তাঁদের সঙ্গে চার মিনিট কথা বলেছিলেন।

জানা যায়, প্রজেক্ট নিম্বাস চুক্তির অধীনে ইসরায়েল গুগলের ক্লাউড কম্পিউটিং ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (এআই) সহায়তা পাচ্ছে। এ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে ইসরায়েলের সেনাবাহিনী ফিলিস্তিনিদের চেহারা দেখেই চিহ্নিত করতে পারবে।


মন্তব্য