চীনের মহড়ার বিরুদ্ধে পাল্টা মহড়া; পাইলটদের ধন্যবাদ তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টের

চীন-তাইওয়ান
  © সংগৃহীত

সায়ত্ত্বশাসিত তাইওয়ানকে নিজেদের অবিচ্ছেদ্য অংশ মনে করে চীন। তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা তাইওয়ানকে স্বাধীন দেশ হিসেবে দেখা শুরু করেছে। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র-তাইওয়ান ও চীনের মধ্যে প্রায়ই মতবিরোধ দেখা দেয়। সম্প্রতি তাইওয়ানকে ঘিরে সামরিক মহড়া চালিয়েছে চীন। আর চীনের মহড়ার বিরুদ্ধে পালটা মহড়া করেছে তাইওয়ানও। এজন্য নিজ দেশের যুদ্ধ বিমানের পাইলটদের ধন্যবাদ দিয়েছেন তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট লাই চিং-তে৷

মঙ্গলবার (২৮ মে) একটি সন্মুখসমর বিমান ঘাঁটিতে ঘটনাটি সম্পর্কে অবহিত হচ্ছিলেন তিনি৷ খবর রয়টার্সের।

হুয়ালিয়েনের পূর্ব উপকূলীয় বিমান ঘাঁটি পরিদর্শন করেন তাইওয়ানের সদ্য নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট লাই চিং-তে৷ সেখানে তাইওয়ানের সবচেয়ে উন্নত ফাইটার জেট এফ ১৬ভি-য়ের বহর রয়েছে৷ এই জেট বিমানগুলোই চীনের মহড়ায় বাগড়া দেয়৷

সম্প্রতি নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব নেবার পর প্রেসিডেন্ট হিসেবে লাইয়ের সূচনা বক্তব্যের ‘শাস্তি' হিসেবে তাইওয়ানকে ঘিরে গত বৃহস্পতিবার দুই দিনের সামরিক মহড়া শুরু করে চীন৷ গণতান্ত্রিকভাবে শাসিত তাইওয়ানকে নিজস্ব অঞ্চলবলে দাবি করে চীন৷ মহড়ার নিন্দা জানায় তাইওয়ান৷ 

চীন তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট লাইকে ‘বিচ্ছিন্নতাবাদী' বলে আখ্যা দেয়৷ জবাবে লাই বলেন, শুধুমাত্র দ্বীপটির লোকেরা তাদের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করবেন৷

হুয়ালিয়েনের ঘাঁটিতে পাইলটদের সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজে অংশ নেন লাই৷ সেখানে তিনি বলেন, ‘‘আমি সব ভাই-বোনদের তাদের নিজ নিজ পোস্টে লেগে থাকার জন্য এবং জাতীয় নিরাপত্তা রক্ষা করার জন্য ধন্যবাদ জানাতে চাই৷'' তিনি আরো বলেন, ‘‘সাম্প্রতিক দিনগুলিতে চীনা সামরিক মহড়ার প্রতিক্রিয়ায়, সবাই ভালো কাজ করেছে৷''

লাই বলেন, তিনি পাইলটদের প্রতিক্রিয়া এবং তাইওয়ান যোদ্ধাদের দক্ষতা সম্পর্কে বিস্তারিত জেনেছেন৷ তিনি সবাই্কে ২৪ ঘণ্টার শিফটে স্ট্যান্ডবাই থাকার নির্দেশ দিয়েছেন৷

তাইওয়ানের সরকারের বক্তব্য, গণপ্রজাতন্ত্রী চীন যেহেতু দ্বীপটি কখনোই শাসন করেনি, তাই এটি দাবি করার বা এর ভবিষ্যৎ সিদ্ধান্ত নেয়ার কোনো অধিকারও তাদের নেই৷

সূত্র: ডয়চে ভেলে


মন্তব্য