এবার ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতির ঘোষণা দিলো স্লোভেনিয়া

ফিলিস্তিন
  © ফাইল ছবি

রাষ্ট্র হিসেবে ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্লোভেনিয়া সরকার। এ ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী রবার্ট গোলব। স্লোভেনিয়া সরকারের এ পদক্ষেপের দিন কয়েক আগেই ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দিয়েছে ইউরোপের তিন দেশ স্পেন, নরওয়ে ও আয়ারল্যান্ড।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) এক সংবাদ সম্মেলনে স্লোভেনিয়ার প্রধানমন্ত্রী রবার্ট গোলব বলেন, ফিলিস্তিনকে স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

এবার এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে দেশটির পার্লামেন্টের অনুমোদনের প্রয়োজন পড়বে। আগামী মঙ্গলবার পার্লামেন্টে এ বিষয়ে ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হবে। তবে ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইসরায়েল কাৎজ মনে করছেন, স্লোভেনিয়ার পার্লামেন্টে ফিলিস্তিনের স্বীকৃতির বিষয়টি অনুমোদন পাবে না। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে (সাবেক টুইটার) এক পোস্টে তিনি বলেন, আমি আশা করি, স্লোভেনিয়া সরকারের এই সুপারিশ প্রত্যাখ্যান করবে দেশটির পার্লামেন্ট।

গত ২৮ মে ফিলিস্তিনকে স্বীকৃতি দেয় স্পেন, নরওয়ে ও আয়ারল্যান্ড। ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭ সদস্যদেশের মধ্যে সুইডেন, সাইপ্রাস, হাঙ্গেরি, চেক প্রজাতন্ত্র, পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া ও বুলগেরিয়া আগেই এই স্বীকৃতি দিয়েছে। একই পথ অনুসরণ করার ঘোষণা দিয়েছে মাল্টাও।

এদিকে ফিলিস্তিনের স্বীকৃতি দেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়া। আর ফ্রান্স বলেছে, এই স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য এখন সঠিক সময় নয়।

অপর দিকে ইসরায়েলের ঘনিষ্ঠ মিত্র যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানির ভাষ্যমতে, একমাত্র আলোচনার মাধ্যমেই ইসরায়েল-ফিলিস্তিন দ্বিরাষ্ট্রীয় সমাধান সম্ভব। গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামলা চালায় হামাস। এতে দেশটিতে অন্তত ১ হাজার ১৩৯ জন নিহত হন। ইসরায়েল থেকে প্রায় আড়াইশ ব্যক্তিকে জিম্মি করে ফিলিস্তিনের গাজায় নিয়ে যান হামাস যোদ্ধারা।

সেদিন থেকেই উপত্যকাটিতে নির্বিচার হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে এখন পর্যন্ত অন্তত ৩৬ হাজার ২২৪ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এদের অধিকাংশ নারী ও শিশু।


মন্তব্য