ফের দক্ষিণ কোরিয়ায় ময়লাভর্তি ৬০০ বেলুন পাঠালো উত্তর কোরিয়া

উত্তর কোরিয়া
  © সংগৃহীত

ফের দক্ষিণ কোরিয়ায় ময়লাভর্তি ৬০০ বেলুন পাঠিয়েছে উত্তর কোরিয়া। গতকাল শনিবার (০১ জুন) রাতভর রাজধানী সিউলের বিভিন্ন স্থানে এসব  গ্যাস বেলুন নামে বলে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী। 

এক বিবৃতিতে সামরিক বাহিনী জানায়, সাদা রঙের এসব বেলুনের সঙ্গে বেঁধে রাখা ছিল আবর্জনার ব্যাগ। সিগারেটের ফেলে দেওয়া টুকরো, বাতিল কাগজ ও কাপড় এবং প্লাস্টিকের আবর্জনা ছিল ব্যাগে। কোনদিক থেকে উড়ে আসছে তা পর্যবেক্ষণ করে এবং আকাশে নজরদারি চালিয়ে বেলুনগুলো খুঁজে বের করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এর আগেও গত বুধবার দুই শতাধিক আবর্জনাভর্তি বেলুন দক্ষিণ কোরিয়ায় পাঠিয়েছিলো উত্তর কোরিয়া। পয়োঃবর্জ্যের মতো আবর্জনাও ছিল সেসব বেলুনে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করা ছবিতে দেখা গেছে, সাদা রঙের বেলুনের ভেতরে টয়লেট পেপার, কালো মাটি, ব্যাটারিসহ অন্যান্য জিনিসপত্র রয়েছে।

উত্তর কোরিয়া নিজেদের এমন কর্মকাণ্ডকে দক্ষিণের প্রতি ‘আন্তরিক উপহার’ বলে জানিয়েছে। এর জবাবে এক বিবৃতিতে পিয়ংইয়ংয়ের এ ধরনের কর্মকাণ্ডকে ‘বিপজ্জনক’ আখ্যা দেয় সিউল।

দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী শিন উন-সিক একে ‘অকল্পনীয় নীচ আচরণ’ বলে আখ্যা দিয়েছেন। এসব বেলুনে পাওয়ার জিনিস পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখছে দক্ষিণ কোরিয়া। তবে এখন পর্যন্ত ক্ষতিকর কোনো কিছু পাওয়া যায়নি।

রোববার উত্তর গিয়ংসাং ও গ্যাংওয়ান প্রদেশ এবং সিউলের কিছু অংশে জরুরি সতর্কতা জারি করে স্থানীয় বাসিন্দাদের এসব বেলুনের সংস্পর্শে না যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। সেই সঙ্গে এ ধরনের বেলুন দেখলে নিরাপত্তা বাহিনীকে জানাতে অনুরোধ করা হয়েছে।

এদিকে উত্তর কোরিয়ার ময়লাভর্তি বেলুনের জবাবে দক্ষিণ কোরিয়া সীমান্তে আবার লাউড স্পিকার বাজানো শুরু করবে কি না, সে বিষয়ে আলোচনার জন্য আজ বৈঠকে বসবে দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী কমিটি। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের কার্যালয়ের বরাতে দেশটির সংবাদমাধ্যম ইয়োনহাপ এ তথ্য জানিয়েছে।


মন্তব্য