দিল্লিতে একটি আসনও পাচ্ছেন না কেজরিওয়ালের দল; এগিয়ে বিজেপি

নির্বাচন
  © ফাইল ছবি

২০১৪ এবং ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে দিল্লির সাতটি আসনের মধ্যে সবকটিতেই জিতেছিলো দিল্লি। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বলছে, ভোট গণনার প্রাথমিক ফল অনুযায়ী দিল্লির সাতটি আসনেই এগিয়ে রয়েছে ক্ষমতাসীন জোট বিজেপি।

তবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানিয়েছে, চার ঘন্টা গণনা করার পরে জাতীয় রাজধানীতে ছয়টি আসনে এগিয়ে রয়েছে। বিরোধী দল ভারত ব্লক একটিতে এগিয়ে রয়েছে।

যদিও নির্বাচনী বিশ্লেষকেরা মনে করেছিলেন, এবারের চিত্র ভিন্ন হবে। বিজেপির হয়তো সবকটি আসনে জয় পাওয়া সহজ হবে না। কারণ গত এপ্রিলে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে দুর্নীতির অভিযোগে কারাবন্দী করেছিল মোদি প্রশাসন। তারপর দিল্লিতে বিক্ষোভ করেছিল কেজরিওয়ালের দল আম আদমি পার্টির সমর্থকরা।

বিশ্লেষকরা ভেবেছিলেন, কেজরিওয়ালকে কারাবন্দী করার কারণে বিজেপির জনসমর্থন কমতে পারে। তার প্রভাব পড়তে পারে ভোটের বাক্সে।

ভোট গণনার সর্বশেষ ফলাফলে দেখা গেছে, দিল্লির সবকটি আসনেই বিজেপি এগিয়ে রয়েছে।

গত মাসে জামিনে মুক্তি পেয়েছিলেন আরবিন্দ কেজরিওয়াল। পরে জামিনের মেয়াদ শেষে ২ জুন তিনি আবার কারাগারে ফিরে গেছেন। জামিনে মুক্ত থাকার সময় কেজরিওয়াল দিল্লিবাসীকে অনুরোধ করেছিলেন তার দল এএপিকে ভোট দিতে, যাতে তাকে আর কারাগারে থাকতে না হয়।

কিন্তু আজ মঙ্গলবার প্রাথমিকে ফলাফলে দেখা যাচ্ছে, তার অনুরোধে সাড়া দেয়নি দিল্লিবাসী।

এনডিটিভির প্রতিবেদন অনুযায়ী, প্রয়াত বিজেপি নেত্রী সুষমা স্বরাজের কন্যা বাঁসুরি স্বরাজ এবারের সাধারণ নির্বাচনে নির্বাচনী অভিষেক ঘটাচ্ছেন। তিনি নয়াদিল্লি আসনে আম আদমি পার্টির সোমনাথ ভারতীকে পেছনে ফেলেছেন।

এএপি, যেটি জাতীয় রাজধানী শাসন করে, বিজেপির বিরুদ্ধে ভারত ব্লকের অংশ হিসাবে কংগ্রেসের সাথে ৪:৩ আসন ভাগ করে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। তবে একটিতেও এগিয়ে নেই কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টি। যদিও চাঁদনি চক কেন্দ্রে এগিয়ে রয়েছেন কংগ্রেসের জয়প্রকাশ আগরওয়াল।

বিহারের বেগুসরাই থেকে গত লোকসভা নির্বাচনে হেরে যাওয়া কানহাইয়া কুমার উত্তর-পূর্ব দিল্লি থেকে বিজেপির দুই মেয়াদের সাংসদ মনোজ তিওয়ারির বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। জেএনইউ-এর প্রাক্তন ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি মিঃ কুমার জনপ্রিয় ভোজপুরি অভিনেতা মিঃ তিওয়ারিকে পিছনে ফেলেছেন।


মন্তব্য