লোকসভা নির্বাচন

জম্মু ও কাশ্মীরে সাবেক দুই মূখ্যমন্ত্রী ওমর আব্দুল্লাহ ও মেহবুবা মুফতির পরাজয়

নির্বাচন
  © ফাইল ছবি

লোকসভা নির্বাচনে হার মেনে নিলেন জম্মু ও কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ। বারামুল্লা আসনে নির্বাচন করেন তিনি। এ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক বিধায়ক ইঞ্জিনিয়ার আবদুল রশীদের কাছে হার মেনে নিলেন সাবেক এই মুখ্যমন্ত্রী। ইঞ্জিনিয়ার আবদুল রশীদ বর্তমানে তিহার জেলে রয়েছেন। 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস বলছে, বুথফেরত জরিপে বলা হয়েছিল, এ আসনে জিততে চলেছেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট ওমর আবদুল্লাহ। কিন্তু আজ মঙ্গলবার ভোট গণনা শুরুর কিছু সময় পর থেকেই পিছিয়ে ছিলেন তিনি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আবদুল রশীদের চেয়ে ১ লাখ ২৯ হাজার ভোটে পিছিয়ে। 

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্সে এক টুইটে ওমর আবদুল্লাহ বলেন, ‘আমার মনে হচ্ছে এটা মেনে নেওয়ার সময় এসে গেছে। উত্তর কাশ্মীরে ইঞ্জিনিয়ার আবদুল রশীদের জয়ের জন্য তাকে অভিনন্দন। তবে, এই জয়ের কারণে তিনি দ্রুত জেল থেকে ছাড়া পাবেন বলে মনে হচ্ছে না। এমনকি দ্রুতই কাশ্মীরবাসী তাদের নেতাকে পাবেন না। তবে, কাশ্মীরবাসী গণতন্ত্রের পক্ষে ভোট দিয়েছে।’

এ পর্যন্ত যে হিসাব এসেছে তাতে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখের ৬ আসনের মধ্যে ন্যাশনাল কনফারেন্স এগিয়ে আছে দুটি আসনে। আর বিজেপি ও স্বতন্ত্র এগিয়ে দুটি করে আসনে। 

অনন্তনাগ-রাজৌরিতে হার মেনে নিয়েছেন পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট ও সাবেক মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি। তিনি হার মেনেছেন ন্যাশনাল কনফারেন্সের প্রার্থী মিয়া আলতাফের কাছে।

এদিকে, মঙ্গলবার (৪ জুন) বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ৫৪৩টি আসনের মধ্যে ৫৪টি আসনের চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করেছে দেশটির নির্বাচন কমিশন।

এতে দেখা যাচ্ছে, চূড়ান্ত ঘোষিত ৩৪টি আসনের মধ্যে ৩৬টিতে জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। ৯টি আসনে জয় পেয়েছে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস। আর অন্যান্য দলগুলো পেয়েছে ৯টি আসন।

দেশটির লোকসভায় সর্বমোট ৫৪৩টি আসন রয়েছে। যদি কোনো দল বা জোট সরকার গঠন করতে চায় তাহলে তাদের অন্তত ২৭২টি আসনে জয় পেতে হবে।


মন্তব্য