জাতিসংঘ

ইমরান খানকে আইন লঙ্ঘন করে কারাবন্দী রাখা হয়েছে

ইমরান
  © ফাইল ছবি

ক্ষমতাচ্যুত হয়ে দীর্ঘদিন ধরে পাকিস্তানের কারাগারে বন্দী অবস্থায় রয়েছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে নিয়মবহির্ভূতভাবে এবং আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে কারাবন্দী করে রাখা হয়েছে বলে দাবি করেছে জাতিসংঘের একটি মানবাধিকার সংস্থা। 

ইমরানের গ্রেপ্তারকে আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন উল্লেখ করে অবিলম্বে তাঁর মুক্তির দাবি জানিয়েছে জেনেভাভিত্তিক জাতিসংঘের ওয়ার্কিং গ্রুপ অন আরবিট্রারি ডিটেনশন। জাতিসংঘ হিউম্যান রাইটস কাউন্সিলের সাথে কাজ করা এই গ্রুপটির দাবি, আন্তর্জাতিক আইন অনুসারে ইমরান খানকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া উচিত। 

বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, ইমরানকে আটক রাখার কোনো আইনি ভিত্তি নেই বলেও জানিয়েছে সংস্থাটি। রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে তাঁকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখতে এসব করা হয়েছে বলেও মতামতে উল্লেখ করা হয়েছে।

২০২২ সালের এপ্রিলে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য হন সাবেক পাকিস্তানি ক্রিকেটার ইমরান খান। এরপর থেকেই একের পর এক সংকটে পড়ছেন ৭১ বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদ। গত বছরের আগস্ট থেকে জেলখানায় রয়েছেন তিনি। মোট চারটি মামলায় অভিযুক্ত তিনি। তবে, এর মধ্যে দুই মামলার কারাদণ্ড বাতিল করা হয়েছে। 

ক্ষমতায় থাকার সময় সরকারি কোষাগার থেকে না জানিয়ে উপহার বিক্রি, সহিংসতায় রাষ্ট্রীয় সম্পদ নষ্টের অপরাধসহ একাধিক মামলা হয় তার বিরুদ্ধে। এদিকে, আইন বর্হিভূতভাবে বিয়ে করার অপরাধে ইমরান খানের স্ত্রী বুশরা বিবিও জেলখানায় রয়েছেন।


মন্তব্য