২১৫ কিলোমিটার গতিতে আঘাত হেনেছে ঘুর্ণিঝড় বেরিল

বেরিল
  © সংগৃহীত

ঘূর্ণিঝড় বেরিলে লণ্ডভণ্ড অঞ্চলের দেশ জ্যামাইকা। দেশটিতে প্রবল শক্তি নিয়ে আঘাত হেনেছে অতি বিপজ্জনক শক্তিশালী সামুদ্রিক ঝড় হারিকেন বেরিল। ঝড়টি আঘাত হানার সময় বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ২১৫ কিলোমিটার।

শক্তিশালী এই ঝড়ে দেশটিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বহু ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং গাছ উপড়ে গেছে। 

আজ বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিরেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রবল বাতাস এবং বৃষ্টির সাথে শক্তিশালী হারিকেন বেরিল জ্যামাইকায় আঘাত হেনেছে। এতে করে ক্যারিবিয়ান এই দ্বীপে বহু ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং গাছপালা ভেঙে পড়েছে।

বিবিসি বলছে, ঘণ্টায় ১৩০ মাইল (২১৫ কিলোমিটার) বেগে বাতাসসহ ক্যাটাগরি- ৪ এই হারিকেনটি দ্বীপের দক্ষিণ উপকূলে আঘাত হানে। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত ছবিগুলোতে দেখা যাচ্ছে, হারিকেনের তাণ্ডবে সেখানকার বহু রাস্তা প্লাবিত হয়েছে এবং ঘরবাড়ির ছাদ উড়ে গেছে।

ক্যারিবীয় অঞ্চলে এই ঝড়ের আঘাতে এ পর্যন্ত অন্তত সাতজন নিহত হয়েছেন।

দক্ষিণ সেন্ট এলিজাবেথ প্যারিশের গ্রামীণ কৃষক সম্প্রদায়ের বাসিন্দা অ্যামোয় ওয়েলিংটনের বরাত দিয়ে রয়টার্স নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, ‘এটি ভয়ানক। সবকিছু শেষ হয়ে গেছে। আমি আমার বাড়িতে আছি এবং ভয় পাচ্ছি। এটা দুর্যোগ।’

জ্যামাইকায় আগে থেকেই হারিকেন সতর্কতা কার্যকর রয়েছে এবং সেখানকার কর্তৃপক্ষ স্থানীয় সময় সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত কারফিউ জারি করেছে। প্রধানমন্ত্রী অ্যান্ড্রু হোলনেস এর আগে জনগণকে ‘এই হারিকেনকে গুরুত্ব সহকারে নেওয়ার’ আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, ‘আপনি যদি নিচু এলাকায় বাস করেন, ঐতিহাসিকভাবে বন্যা ও ভূমিধসের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা, অথবা আপনি যদি নদী বা খালের তীরে থাকেন, তাহলে আমি আপনাকে আশ্রয়কেন্দ্রে বা নিরাপদ স্থানে সরে যেতে অনুরোধ করছি।’

বেরিলের আঘাতে গ্রেনাডায় তিনজন মারা গেছেন। গত সোমবার এই হারিকেনটি প্রথম সেখানে আঘাত হানে। এছাড়া সেন্ট ভিনসেন্ট অ্যান্ড গ্রেনাডাইনসে একজন এবং অন্য তিনজন মারা গেছেন উত্তর ভেনেজুয়েলায়।

সেন্ট ভিনসেন্ট অ্যান্ড গ্রেনাডাইনের অংশ ইউনিয়ন আইল্যান্ডে বেরিলের তাণ্ডবে প্রায় ৯০ শতাংশ বাড়ি ধ্বংস বা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

জ্যামাইকার বেশ কিছু অংশ অবশ্য আগেই বিদ্যুৎ সরবরাহে ব্যাঘাতের সম্মুখীন হয়েছিল। এছাড়া জ্যামাইকা পাবলিক সার্ভিস কোম্পানি (জেপিএস) বলেছে, কর্মীদের নিরাপত্তার জন্য কিছু জায়গায় বিদ্যুতের লাইন সচলে বিরতি দিতে বাধ্য হয়েছে তারা।

এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় হারিকেন সেন্টার জানায়, হারিকেনটি জ্যামাইকার খুব কাছাকাছি চলে এসেছে। হারিকেন সেন্টারের পরিচালক ড. মাইকেল ব্রেনান বুধবার বলেন, খুব দ্রুত সময়ে জ্যামাইকার আবহাওয়ার অবনতি ঘটবে। এসময় তিনি সাধারণ মানুষকে অন্তত ১২ ঘণ্টা নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার আহ্বান জানান।

পরিচালক ব্রেনান আরও বলেন, প্রবল শক্তিশালী এ ঝড়টি জ্যামাইকার দক্ষিণ অংশের পাশ দিয়ে অথবা উপর দিয়ে অতিক্রম করবে। ওই সময় হারিকেনটির বাতাসের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ২৪৯ কিলোমিটার।

হারিকেনটির কারণে জ্যামাইকার স্থলভাগ অতিক্রমের সময় সেখানে ৬ থেকে ৯ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের সৃষ্টি হতে পারে সতর্কতা দেন তিনি।

জ্যামাইকার তথ্যমন্ত্রী ডানা মরিস ডিক্সন বলেছেন, নিরাপত্তার জন্য বাড়িঘর ছাড়া লোকদের জন্য দ্বীপটিতে ৯০০টি আশ্রয়কেন্দ্র রয়েছে।

এদিকে ভেনেজুয়েলায় হারিকেন বেরিলের জেরে ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। এর ফলে উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশ সুক্রেতে একটি নদীর পানি উপচে পড়ে আশপাশের এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এতে তিনজন নিহত এবং বেশ কয়েকজন এখনও নিখোঁজ রয়েছেন।

এছাড়া ক্ষয়ক্ষতি পরিদর্শন করতে গিয়ে গাছ উপড়ে পড়ে সরকারি প্রতিনিধি দলের কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন। প্রেসিডেন্ট নিকোলাস মাদুরো বলেছেন, আহতদের মধ্যে ভাইস-প্রেসিডেন্ট ডেলসি রদ্রিগেজও রয়েছেন।


মন্তব্য