যুক্তরাজ্যে সাধারণ নির্বাচন

ফিলিস্তিনিপন্থি প্রার্থীর কাছে লেবার পার্টির পরাজয়

যুক্তরাজ্যে
  © ফাইল ফটো

যুক্তরাজ্যে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ নির্বাচনে উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় সাবেক শিল্পনগরী ব্ল্যাকবার্নে সাত দশকের ইতিহাসের পতন হয়েছে। আসনটিতে এতকাল রাজত্ব করে আসছিল লেবার পার্টি। তবে এবারের নির্বাচনে লেবার প্রার্থী কেট হলার্নকে হারিয়েছেন ফিলিস্তিনপন্থি স্ত্রতন্ত্রপ্রার্থী আদনান হোসাইন।

শুক্রবার (০৫ জুলাই) মিডল ইস্ট মনিটরের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, গাজায় ইসরায়েলি অভিযান নিয়ে লেবার পার্টির অবস্থান ভোটারদের মধ্যে বিভক্তি ও অসন্তোষ তৈরি করেছে। আসনটিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী আদনানের জয় সেই ইঙ্গিত দিয়েছে। নির্বাচনে ফিলিস্তিনপন্থি এ স্বতন্ত্র প্রার্থী পেয়েছেন ১০ হাজার ৫১৮ ভোট। অন্যদিকে পরাজিত প্রার্থী পেয়েছেন ১০ হাজার ৩৮৬ ভোট। হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর ১৩২ ভোটে পরাজিত হয়েছেন।

আসনটিতে সাবেক ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত ক্রেইগ মারেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। গাজাপন্থি প্লাটফর্ম জজ গ্যালওয়েজের ওয়ার্কাস পার্টি থেকে নির্বাচন করে তিনি সাত হাজার ১০৫ ভোট পেয়েছেন। উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলীয় এ আসনটিতে ৬৯ বছর ধরে প্রতিনিধিত্ব করে আসছে লেবার পার্টি।

আদনান হোসাইন পেশায় আইনজীবী। নির্বাচনে গাজাপন্থি প্লাটফর্ম থেকে দাঁড়িয়েছেন। তাকে সাবেক লেবার কাউন্সিলরদের একটি দল সমর্থন দিয়েছিল। দলটির গাজা নীতিকে ঘিরে তারা লেবার পার্টি থেকে সরে আসেন। গত মে সামের শুরুতে অনুষ্ঠিত স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলটি ব্ল্যাকবার্ন বরোর দ্বিতীয় বৃহত্তম দল হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিল।

জুনের মাঝামাঝিতে মিডল ইস্ট আইকে আদনান বলেন, সাধারণ নির্বাচনের জয়ের ব্যাপারে আমি আত্মবিশ্বাসী। আমি এ কমিউনিটিতে বড় হয়েছি। তাদের ভাষায় আমি কথা বলি। আমি তাদের সংগ্রামের গল্পগুলোও জানি।

তিনি বলেন, গাজায় যা ঘটছে তা গুরুত্বপূর্ণ। সেজন্য আমি নির্বাচনে দাঁড়িয়েছি। দারিদ্র্য ও স্বাস্থ্যসেবাও রড় ইস্যুগুলোর অন্যতম বলে জানান তিনি।


মন্তব্য