পাকিস্তানে অবতরণের পর ২৭৬ যাত্রী বহনকারী বিমানে আগুন

পাকিস্তান
  © সংগৃহীত

পাকিস্তানের পেশোয়ার বিমানবন্দরে অবতরণের পর সৌদি আরবের রিয়াদ থেকে পেশোয়ারগামী সাউদিয়া এয়ারলাইনসের একটি বিমানে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে।

আজ বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে পাকিস্থানি গণমাধ্যম সামা টিভি। এছাড়া ব্লুমবার্গ, ডন, আরব নিউজ, এনডিটিভি, মিন্ট, গালফ নিউজের প্রতিবেদনেও একই তথ্য জানানো হয়েছে।

পেশোয়ারের বাচা খান আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের পর, বিমান ট্রাফিক কন্ট্রোলাররা সাউদিয়ার ওই বিমানটির ল্যান্ডিং গিয়ারের বাম দিকে আগুন এবং ধোঁয়া দেখতে পান। 

দ্রুতই পাইলট এবং উদ্ধারকারী দলকে বিষয়টি অবহিত করেন ট্রাফিক কন্ট্রোলার। পরে দমকল বাহিনী গিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলে।
 
এ ঘটনায় কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি এবং ২৭৬ জন যাত্রী ও ২১ জন ক্রু সদস্যকে নিরাপদে সরিয়ে নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। ঘটনার ভিডিও ফুটেজে, যাত্রীদের জরুরি স্লাইডের মাধ্যমে বিমান থেকে নামতে দেখা যায়। 
 
পাকিস্তানি সম্প্রচারমাধ্যম সামা টিভি জানিয়েছে, সামান্য আহত কয়েকজন যাত্রীকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। 

সাউদিয়া এয়ারলাইনস কর্তৃপক্ষ এক বিবৃতিতে বলেছে, বিমানটি অবিলম্বে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে এবং সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করা হয়েছে। বিমানটি এখন বিশেষজ্ঞদের ‘প্রযুক্তিগত মূল্যায়নের’ মধ্যদিয়ে যাচ্ছে।
 
ব্লুমবার্গ জানিয়েছে, বিমানটি ছিল সাত বছরের পুরানো এয়ারবাস এ৩৩০-৩০০ মডেলের। 

পাকিস্তানের সিভিল এভিয়েশন অথরিটির (সিএএ) মুখপাত্র সাইফুল্লাহর উদ্ধৃতি দিয়ে সংবাদমাধ্যম ডন জানিয়েছে, দমকলকর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিমানটির ল্যান্ডিং গিয়ারে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে এবং সেটিকে একটি বড় দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা করে।

পেশোয়ার বিমানবন্দরের কর্মকর্তাদের উদ্ধৃতি দিয়ে ডন আরও জানিয়েছে, বিমানবন্দরটি চালু আছে এবং সব ফ্লাইট তাদের নির্দিষ্ট সময়সূচি অনুযায়ী চলবে।


মন্তব্য