প্রাথমিকে নিয়োগ পরীক্ষায় জালিয়াতির অভিযোগে আটক ২২, বহিষ্কার ২৬

প্রাথমিক
  © ফাইল ছবি

আজ শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত বগুড়া শহরের ৩৭ কেন্দ্রে একযোগে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ পরীক্ষায় মোবাইল ফোন ও ইলেকট্রনিকস ডিভাইস ব্যবহারের অভিযোগে বগুড়ায় ২২ পরীক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে। এছাড়াও বহিষ্কার করা হয়েছে আরও ২৬ জনকে।

আজ শুক্রবার (২ ফেব্রুয়ারি) বগুড়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) আফসানা ইয়াসমিন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, 'কিছু পরীক্ষার্থী মুঠোফোন ব্যবহার করে কেন্দ্র থেকে প্রশ্ন বাইরে পাঠিয়ে অসদুপায় অবলম্বনের চেষ্টা করছিল। তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হবে।'

আটকদের বগুড়া সদর ও শাজাহানপুর থানায় হস্তান্তর করেছে জেলা প্রশাসন। 

বগুড়া জেলা প্রশাসন সূত্র জানায়, আটক ২২ পরীক্ষার্থী গোপনে কেন্দ্রে মুঠোফোন নিয়ে যায়। তারা প্রশ্নপত্রের ছবি তুলে বাইরে পাঠিয়ে এবং ইলেকট্রনিকস ডিভাইসের মাধ্যমে উত্তর সংগ্রহ করছিলেন। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাদের আটক করেন। 

বগুড়া সরকারি আজিজুল হক কলেজ, বিয়াম মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, বগুড়া সিটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, পুলিশ লাইনস স্কুল অ্যান্ড কলেজ, সরকারি মজিবর রহমান মহিলা কলেজসহ ১১ পরীক্ষাকেন্দ্র থেকে ২২ জনকে আটক করা হয়। এর মধ্যে ১৯ জনকে বগুড়া সদর থানায় এবং ৩ জনকে শাজাহানপুর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। 

বগুড়া সদর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শাহিনুজ্জামান বলেন, 'আটককৃতদের নামে পাবলিক পরীক্ষা আইনে পৃথক ১০টি মামলা হবে।

শাহজাহান থানার ওসি শহিদুল ইসলাম বলেন, 'তিন নারী পরীক্ষার্থীকে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।'

বগুড়া জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্র জানায়, জেলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ছিল ৩২ হাজার ১৭৯ জন। শুক্রবার পরীক্ষায় উপস্থিত ছিলেন ২৩ হাজার ৫৬৬ জন।


মন্তব্য