মৌখিক পরীক্ষার ১০ বছর পর বিসিএস ক্যাডার পদে সুপারিশ

বিসিএস
  © ফাইল ছবি

সাল ২০১২। ৩৩তম বিসিএসে আবেদন করে প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছিলেন আফরোজা খানম। কিন্তু ২০১৩ সালে মৌখিক পরীক্ষা দিলেও বাবার মুক্তিযোদ্ধা সনদ জটিলতায় তার সুপারিশ স্থগিত করে সরকারি কর্ম কমিশন (পিএসসি)। এবার মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মতামতে তার সনদ জটিলতা কাটলে পিএসসি থেকে নিয়োগের সুপারিশ পেয়েছেন আফরোজা খানম। তবে এতে সময় লেগেছে ১০ বছর।

গতকাল মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) এক বিজ্ঞপ্তিতে তাকে সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের প্রভাষক পদে নিয়োগের সুপারিশ করেছে পিএসসি।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ৩৩তম বিসিএস পরীক্ষার্থী আফরোজা খানমের (রোল নম্বর: ০২৯৭৭৪) বাবার মুক্তিযোদ্ধা সনদ–সম্পর্কিত বিষয়ে জটিলতা থাকায় তার সুপারিশ কমিশন কর্তৃক স্থগিত রাখা হয়েছিল। পরবর্তী সময়ে আফরোজা খানমের দাখিলকৃত তার বাবার মুক্তিযোদ্ধা সনদের বিষয়ে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মতামত অনুযায়ী স্থগিত ঘোষিত ফলাফল প্রকাশের সিদ্ধান্ত কমিশন গ্রহণ করেছে। কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তাকে বিসিএস (সাধারণ শিক্ষা) ক্যাডারের প্রভাষক (ইতিহাস) পদে সাময়িকভাবে সুপারিশ করা হলো।

এতে আরও বলা হয়েছে , পরবর্তী সময়ে যেকোনো পর্যায়ে প্রার্থীর যোগ্যতার ঘাটতি ধরা পড়লে, দুর্নীতি, অসত্য তথ্য প্রদান বা অন্য কোনো ক্ষেত্রে কাগজপত্রের ঘাটতি থাকলে বা কোনো গুরুতর ভুলত্রুটি ধরা পড়লে তাঁর সুপারিশ/মনোনয়ন বাতিল করা হবে। মেডিকেল বোর্ড স্বাস্থ্য পরীক্ষায় যোগ্য ঘোষণা ও যথাযথ এজেন্সি কর্তৃক প্রাক্‌–নিয়োগ জীবনবৃত্তান্ত যাচাইয়ের পর সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রার্থীকে নিয়োগ করা হবে।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১ জুন প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় ১ লাখ ৯৩ হাজার ৫৯ পরীক্ষার্থী অংশ নেন। এতে মোট শূন্য পদের সংখ্যা ছিল ৪ হাজার ২০৬টি।


মন্তব্য