কৃষকের লাল গামছায় রক্ষা পেল ৫০০ যাত্রীর ট্রেন

জাতীয়
  © সংগৃহীত

রেললাইনের পাটাতন সরে ভেঙে গিয়েছিল। এ পথেই হুইসেল বাজিয়ে আসছিল বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেন। স্থানীয়রা তা দেখে লাল গামছা টাঙিয়ে ট্রেনটি থামিয়ে দেন। তাতে অল্পের জন্য দুর্ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে ট্রেনটি।

সোমবার সকাল ১১টার দিকে চারঘাট উপজেলার বাঘমারী স্টেশনের কাছে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় ট্রেনটিতে প্রায় ৫০০ যাত্রী ছিলেন।

এতে রাজশাহীর সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। আটকা পড়ে চিলাহাটী-রাজশাহী রুটের বরেন্দ্র এক্সপ্রেস, রাজশাহী-ঢাকা রুটের ধূমকেতু এবং যশোর-রাজশাহী রুটের কপোতাক্ষ ট্রেন। রেললাইন মেরামত শেষে এক ঘণ্টা পর ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। তবে ঝুঁকি এড়াতে ট্রেন চলছে ধীরগতিতে।

সরদহ স্টেশন মাস্টার ইকবাল হোসেন জানান, চিলাহাটী থেকে ছেড়ে আসে বরেন্দ্র এক্সপ্রেস ট্রেনটি। বাঘমারী এলাকায় রেললাইন ভাঙা থাকায় দুর্ঘটনার কবলে পড়তে যাচ্ছিল। এলাকাবাসীর তৎপরতায় দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছে ট্রেনটি। ট্রেনটিতে প্রায় ৫০০ যাত্রী ছিলেন।

বাঘমারী এলাকার বাসিন্দা শফিকুল ইসলাম জানান, তারা কয়েকজন পাশের ক্ষেতে কাজ করছিলেন। স্থানীয় দু’জন রেললাইন ধরে অন্য জমিতে যাওয়ার সময় লাইন ভাঙা দেখে তাদের জানান। ট্রেন আসতে দেখে তাৎক্ষণিক লাল গামছা টাঙিয়ে ট্রেন চালককে সংকেত দেওয়া হয়। সংকেত পেয়ে ট্রেনটি থেমে যায়।

পশ্চিমাঞ্চল রেলের মহাব্যবস্থাপক অসীম কুমার তালুকদার বলেন, কীভাবে রেলের পাত ভেঙেছে সেটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তবে তীব্র শীতের কারণে রেললাইনের কিছু অংশ ভেঙে থাকতে পারে। এ কারণে ঘণ্টাখানেক ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। এখন রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক রয়েছে।

তথ্য: সমকাল


মন্তব্য