২১ বার বইমেলার উদ্বোধন করে রেকর্ড গড়লেন প্রধানমন্ত্রী

বইমেলা
  © সংগৃহীত

মাসব্যাপী অমর একুশে বইমেলা- ২০২৪ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ নিয়ে ২১ বার অমর একুশে বইমেলা উদ্বোধন করে রেকর্ড গড়লেন প্রধানমন্ত্রী।

আজ বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) বিকালে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান প্রাঙ্গণে এ বইমেলার উদ্বোধন করেন তিনি।

এ সময় দুটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার প্রদান করেন সরকার প্রধান। এরপর অমর একুশে বইমেলার উদ্বোধনী খামে সই করেন প্রধানমন্ত্রী। বাংলা একাডেমি আয়োজিত এবারের বইমেলার প্রতিপাদ্য ‘পড়ো বই, গড়ো দেশ: বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’। 

এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, বই মেলা আমাদের প্রাণের মেলা। শুধু প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এসেছি এমন নয়। স্কুল জীবন থেকেই এখানে আসতাম। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় বাংলা একাডেমির লাইব্রেরি ব্যবহার করতাম। অনেক স্মৃতিবিজরিত জায়গা। বই মেলাও কিন্তু বিশ্ব স্বীকৃতি পেয়েছে, এটাও কিন্তু আমাদের বড় অর্জন। জায়গা ছোট দেখে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেও আয়োজন করা হয়েছে। আমি মনে করি এখানে অনেকেই আসতে চায়। জায়গাটা আরও কিভাবে বড় করা যায় সেটা ভেবে দেখতে হবে।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘অনুবাদ সাহিত্যের ওপর জোর দিতে হবে। বাংলা সাহিত্যের বিভিন্ন ভাষায় অনুবাদের মাধ্যমে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দিতে হবে। বাংলা পৃথিবীর মধুর ভাষা। আমাদের সাহিত্য সংস্কৃতি সমৃদ্ধ।  একে আরও সমৃদ্ধ করতে হবে। নানা বাধা পেরিয়ে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। আমাদের শিল্প সাহিত্যকে আরও এগিয়ে নিতে হবে।’ 

উদ্বোধন শেষে বইমেলার বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এবারের মেলায় ৬৩৫টি প্রতিষ্ঠানকে দেওয়া হয়েছে ৯৩৭টি স্টল। প্যাভিলিয়ন থাকছে ১৩৭টি। পাঠক-দর্শনার্থী প্রবেশে থাকছে ৮টি গেট।

গত কয়েকদিন ধরেই মেলার প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত ছিলেন সংশ্লিষ্টরা। গত বুধবার স্টলগুলোর বেশিরভাগে রং আর নকশার কাজ চলে। তবে এবার তাড়াহুড়ো করে কাজ করতে হয়েছে বলে জানান প্রকাশনা সংশ্লিষ্টরা। তাঁরা বলেন, স্টল বরাদ্দের পর নির্মাণকাজে কম সময় পেয়েছেন তারা।

মেলা প্রাঙ্গণ ও আশপাশের এলাকা পুরোপুরি সিসি ক্যামেরার আওতায় থাকছে। গতকাল বুধবার নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শন করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার হাবিবুর রহমান।

পরিদর্শন শেষে ডিএমপি কমিশনার হাবিবুর রহমান বলেন, বইমেলায় নাশকতা ও জঙ্গি তৎপরতার আগের ঘটনা মাথায় রেখে নিরাপত্তা পরিকল্পনা সাজানো হয়েছে। তবে সুনির্দিষ্ট কোনো হুমকি নেই।

বইমেলায় নারী ও শিশুদের জন্য রাখা হয়েছে ব্রেস্ট ফিডিং কর্নার। 


মন্তব্য