মিয়ানমারে সংঘর্ষ

রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ ঠেকাল বিজিবি

রোহিঙ্গা
  © ইউএনবি

মিয়ানমারে দেশজুড়ে চলমান সহিংসতায় সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী পিপলস ডিফেন্স ফোর্সেস (পিডিএফ) এবং এথনিক আর্মড অর্গানাইজেশন (ইএও) জান্তা শাসকদের লক্ষ্যবস্তুতে হামলার তীব্রতা বাড়িয়েছে। এ অবস্থায় দেশটির সীমান্ত রক্ষাকারী বাহিনীর (বিজিপি) ৯৫ সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। এ সংঘর্ষে ভীত হয়ে কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে একটি রোহিঙ্গা পরিবার। তবে ওই পরিবারের চারজনকে পুশব্যাক করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

সোমবার (৫ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে টেকনাফের হোয়াইক্ষ্যং হোয়াইক্যং উলুবনিয়া পয়েন্ট রোহিঙ্গারা অনুপ্রবেশের চেষ্টাকালে তাদের পুশব্যাক করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল মহিউদ্দীন আহমেদ।

তিনি জানান, হোয়াইক্যং উলুবনিয়া পয়েন্ট দিয়ে একটি রোহিঙ্গা পরিবার অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে। পরে বিজিবি তাদের পুশব্যাক করে। সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিজিবি কঠোর অবস্থানে রয়েছে।

হোয়াইক্যং এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ ফাহিম বলেন, মিয়ানমারের অভ্যন্তরে কয়েকদিন ধরে সংঘর্ষ চলছে। এ কারণে কিছু রোহিঙ্গা বাংলাদেশ সীমান্তে অবস্থান করছিল। আজ দুপুরের দিকে রোহিঙ্গা পরিবারটি অনুপ্রবেশের চেষ্টা করলে বিজিবি তাদের আটকে দেয়। আমরা কিছু জেলেদের কাছ থেকে শুনেছি শতাধিক রোহিঙ্গা সীমান্তের কাছাকাছি অবস্থান করছে।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (অতিরিক্ত সচিব) মিজানুর রহমান বলেন, নতুন করে মিয়ানমার থেকে কাউকে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের সুযোগ দেয়া হবে না।

সূত্র : ইউএনবি


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ