লন্ডন এক্সপ্রেসের ১৪টি বাস পুড়ে ছাই, নাশকতা কি না খতিয়ে দেখছে পুলিশ

ডেমরায়
  © সংগৃহীত

রাজধানীর ডেমরায় গ্যারেজে রাখা লন্ডন এক্সপ্রেসের ১৪টি ভলভো বাস আগুনে পুড়ে গেছে। এটি নিছক দুর্ঘটনা নাকি নাশকতা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। পুলিশ বলছে, দুর্ঘটনা হলে এক থেকে দুটি বাস পুড়তো, কিন্তু সারিবদ্ধভাবে থাকা একসঙ্গে ১৪টি দামি ভলভো বাস কীভাবে পুড়লো।

সোমবার (১ এপ্রিল) রাতে এসব কথা জানান ঢাকা ডিএমপির ওয়ারী বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. ইকবাল হোসেন।

ইকবাল হোসেন বলেন, রাজধানীর ডেমরায় ধার্মিকপাড়ায় গ্যারেজে আওয়াজের পর দাঁড়িয়ে থাকা বাসে আগুন ধরে যায়। মুহূর্তেই চারদিকে আগুন ছড়িয়ে একে একে ১৪টি বাস পুড়ে যায়। প্রাথমিকভাবে যতটুকু জানা গেছে, ওই গ্যারেজে দাঁড়িয়ে থাকা একটি বাসে আগুনের পর ১৪ বাসে আগুন লাগে।

ঘটনাটি নাশকতা কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে ওয়ারী বিভাগের ডিসি বলেন, দুর্ঘটনা নাকি নাশকতা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পুলিশ এরই মধ্যে কাজ শুরু করেছে। তবে দুর্ঘটনা ঘটলে একটি বা দুটি অথবা ছয়টি বাসে আগুন লাগতো। তাই বলে একেবারে সারিবদ্ধভাবে থাকা ১৪টি বাস পুড়ে যায় কীভাবে।

এর আগে, সোমবার (১ এপ্রিল) রাত ৮টা ৫০ মিনিটে আগুন লাগার খবর পায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স। এরপর ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট ৯টা ৪৮ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণ কক্ষের ডিউটি অফিসার রাশেদ দিন খালিদ গণমাধ্যমকে জানান, রাজধানীর ডেমরার কোনাপাড়ার ধার্মিকপাড়ায় গ্যারেজে থাকা ভলভো বাসে আগুন লাগার খবর আসে। খবর পেয়ে প্রথমে আগুন নিয়ন্ত্রণে ডেমরা ফায়ার স্টেশনের দুটি ইউনিট কাজ করে। পরে যোগ দেয় সিদ্দিকবাজার থেকে আরও তিনটি ইউনিট।

প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ ও অন্য ক্ষয়ক্ষতির কোনো তথ্য জানাতে পারেনি ফায়ার সার্ভিসের এ কর্মকর্তা।

রাত ৯টা ৪৮ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা। তার আগেই আগুনে লন্ডন এক্সপ্রেসের ১৪টি ভলভো বাস পুড়ে যায়।


মন্তব্য