সকালে সন্ধ্যা নেমে এলো ঢাকায়, নামল স্বস্তির বৃষ্টি

বৃষ্টি
  © টিবিএম ফটো

সাতসকালেই ঢাকার আকাশে কালো মেঘে ঢেকে গেছে। ভোর থেকে শুরু হওয়া মেঘের গর্জন ক্রমেই বাড়তে থাকে। সকাল ৭টার পরপরই সন্ধ্যায় আবহ তৈরি হয়। এরপরই নামে ঝুম বৃষ্টি।

তীব্র দাবদাহের পর চলতি মাসের শুরুর দিকে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিক্ষিপ্তভাবে ঝড়-বৃষ্টি হচ্ছে। এতে কিছুটা স্বস্তি ফিরেছিল জনজীবনে। এরমধ্যেই আবার কমে যায় বৃষ্টিপাতের প্রবণতা। আবহাওয়া অফিসও পূর্বাভাস দিয়ে আসছিল আগামী মঙ্গলবারের পর থেকে গরম আবার বাড়বে। কিন্তু আজ শনিবার (১১ মে) ভোর থেকেই আবার ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় মেঘের গর্জন শোনা যেতে থাকে। সকাল ৭টার পরপরই ঢাকার আকাশ কালো হয়ে সন্ধ্যার মতো রূপ নিতে থাকে। এরপরই শুরু হয় ঝুম বৃষ্টি। 

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে সরকারি অফিস-আদালত বন্ধ হলেও সকালে হঠাৎ বৃষ্টি হওয়ায় বেশ বিপাকে পড়তে দেখা গেছে শ্রমজীবী ও বেসরকারি চাকরিজীবীদের। যারা কাজে বের হয়েছেন তারা ভিজে গেছেন। আবার অনেকেই বের হতে পারেননি ঘর থেকে। আর বৃষ্টি ‍শুরুর পরই ঢাকার সড়কে যানবাহনের চলাচলও সীমিত হয়ে পড়ে।
 
এর আগে, রাতেই দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোর জন্য দেয়া এক পূর্বাভাসে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছিল, ঢাকাসহ দেশের ৯ অঞ্চলের ওপর দিয়ে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড় হতে পারে। সেইসঙ্গে বজ্রসহ বৃষ্টিও হতে পারে।

আবহাওয়াবিদ খো. হাফিজুর রহমান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, কুমিল্লা এবং সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম অথবা উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এ সময় বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। তাই এসব এলাকার নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া অফিসের অপর এক বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, এ সময় ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রাজশাহী, রংপুর ও চট্টগ্রাম বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রবৃষ্টি হতে পারে। সেইসঙ্গে কোথাও কোথাও শিলাবৃষ্টিও হতে পারে। 


মন্তব্য


সর্বশেষ সংবাদ