এমপিদের আমদানি করা গাড়িতে কর আরোপ; প্রধানমন্ত্রীর সায়

কর
  © ফাইল ছবি

সংসদ সদস্যদের (এমপি) জন্য আমদানি করা গাড়িতে কর আরোপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর)। আর এনবিআরের এ প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে গণভবনে বাজেট বিষয়ক সভায় এনবিআর কর্মকর্তারা সংসদ সদস্যদের আমদানি করা গাড়িতে ২৫ শতাংশ কাস্টমস ডিউটি (সিডি) আরোপের প্রস্তাব দেন। 

বৈঠকে অংশ নেওয়া একাধিক কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এনবিআরের এ প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছেন। 

এর ফলে সংসদ সদস্যদের শুল্কমুক্ত গাড়ির সুবিধা আর থাকবে না। গাড়ির দাম ও আমদানি শুল্কের যোগফলের ওপর সম্পূরক শুল্ক বসে। ৩৬ বছর ধরে সংসদ সদস্যরা শুল্কমুক্ত গাড়ি আমদানির সুবিধা পেয়ে আসছেন। 

এনবিআর কর্মকর্তারা জানান, রাজস্ব আদায় বাড়াতেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে সম্পূরক শুল্ক আগের মতোই অব্যাহতি থাকবে। 

এদিকে, রাজস্ব আদায় বাড়াতে এনবিআরের আরও কিছু সিদ্ধান্ত সায় দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আগামী অর্থবছরে মোবাইলে ফোনে কথা বলার খরচ বাড়বে। 

কর্মকর্তারা জানান, মোবাইল কল ও ইন্টারনেট ডেটায় সম্পূরক শুল্ক বাড়ানো হবে। আয়কর আদায় বাড়াতে উচ্চবিত্তদের ওপর কর বাড়ানোর প্রস্তাবেও সায় দিয়েছেন শেখ হাসিনা। 

কর্মকর্তারা আরও জানান, বছরে ৫০ লাখ টাকার বেশি আয় হলে ৩০ শতাংশ হারে আয়কর দিতে হবে। যা বর্তমানে ২৫ শতাংশ। শেয়ারবাজারে ব্যক্তির লেনদেন মুনাফা, মেট্রোরেলের টিকেটসহ আরো কিছু ক্ষেত্রে কর আরোপে এনবিআরের প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। 

তবে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে করপোরেট কর কমাতে বলেছেন সরকার প্রধান। কর্মকর্তারা জানান, শেয়ারবাজারে নিবন্ধিত নয় এমন কোম্পানির কর কমতে পারে আড়াই শতাংশ।

এনবিআর কর্মকর্তারা জানান, ব্যক্তির করমুক্ত আয়ের সীমা অপরিবর্তিত থাকবে। মূল্যস্ফীতি কমাতে প্রধানমন্ত্রী এনবিআরকে নির্দেশনা দিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।


মন্তব্য